• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: অক্টোবর ১৯, ২০১৯, ০৭:০৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ১৯, ২০১৯, ০৭:০৪ পিএম

দরিদ্র পরিবারের শিশুরাই অপুষ্টিতে ভোগে বেশি : ইউনিসেফ

জাগরণ প্রতিবেদক
দরিদ্র পরিবারের শিশুরাই অপুষ্টিতে ভোগে বেশি  : ইউনিসেফ

বাংলাদেশের সবচেয়ে দরিদ্র পরিবারে জন্ম নেয়া ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদের ৪৯ শতাংশ শিশুর উচ্চতা বয়সের ‍তুলনায় কম (খর্বকায়) বলে তথ্য প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ শিশু তহবিল (ইউনিসেফ)।

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) ২০১৯ সালের শিশুবিষয়ক একটি বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে ইউনিসেফ।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে বাংলাদেশে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুর সংখ্যা ৪৭ লাখেরও বেশি। যার মধ্যে বয়সের তুলনায় ওজন বেশি (স্থূলকায়) প্রায় ১ লাখ শিশুর। সংস্থাটি বলেছে-বাংলাদেশে শিশু মৃত্যুহার কমছে। ১৯৯০ সালে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুমৃত্যুর হার ছিল ১৪৪ (জন্মগ্রহণকারী ১ হাজার শিশুর মধ্যে পাঁচ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে ১৪৪ শিশু মারা যেত)। ২০১৮ সালে এই হার কমে ৩০ এ দাঁড়ায়। ২০১৮ সালে এ বয়সের প্রায় ৮৯ হাজার শিশুর মৃত্যু হয়েছিল। যার মধ্যে ৫০ হাজার ছিল নবজাতক (জন্মের পর ২৮ দিন পূর্ণ হওয়ার আগের শিশু)।

প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়, বাংলাদেশের শিশুরা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবজনিত ঝুঁকিতে রয়েছে। বন্যা, নদীভাঙনসহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা অন্য কারণে শিশুরা অভিভাবকের সাথে শহরের বস্তিতে আশ্রয় নেয়। এখানে শিশুদের স্বাস্থ্যগত বহু ঝুঁকিতে পড়ে যাচ্ছে। যেমন- অপুষ্টি, শিশুশ্রম, বাল্যবিবাহ, নির্যাতন, সহিংসতা ইত্যাদি।

ইউনিসেফ বলছে, দেশে ২৮ শতাংশ শিশু প্রয়োজনের চেয়ে কম ওজন নিয়ে জন্মায়। জন্মের পরপর ৫১ শতাংশ শিশুকে শালদুধ খাওয়ানো হয়। ৪৯ শতাংশ শিশুকে ঠিক সময়ে শালদুধ দেয়া হচ্ছে না। ছয় মাসের কম বয়সী ৫৫ শতাংশ শিশু শুধু বুকের দুধ খায়।

আরএম/এসএমএম