• ঢাকা
  • বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২০, ০১:২২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২০, ০৩:৪৩ পিএম

ইনফ্লুয়েঞ্জা ও এইচআইভি অ্যান্টিভাইরালের মিশ্রণে করোনার ওষুধ!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ইনফ্লুয়েঞ্জা ও এইচআইভি অ্যান্টিভাইরালের মিশ্রণে করোনার ওষুধ!

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে গোটা বিশ্ব। গত বছরের ডিসেম্বরে প্রথমবারের মতো উহানে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর চীনসহ প্রায় ২৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতি এই ভাইরাস। এতে অন্তত ১৭ হাজার ৩০০ জনের আক্রান্ত হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত তথ্য মিলেছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চীনে এখন পর্যন্ত ৩৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফিলিপাইনে একজন মারা গেছেন।

যখন প্রাণঘাতি এই ভাইরাসের ঠেকানোর উপায় বের করতে দিন-রাত মাথা খাটাচ্ছেন বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা। এরই মধ্যে সুখবর দিলেন থাইল্যান্ডের একদল চিকিৎসক। তাদের দাবি, তারা তৈরি করে ফেলেছেন করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক। এএফপি।

ইনফ্লুয়েঞ্জা চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওসেলটামিভ গ্রুপের একটি ওষুধ- ইন্টারনেট

ব্যাংককের রাজাভিথি হাসপাতালের চিকিৎসকরা দাবি করেছেন, তারা ইনফ্লুয়েঞ্জা ও এইচআইভির ওষুধ একসঙ্গে মিশিয়ে তা দিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত চীনের বয়স্ক এক ব্যক্তির চিকিৎসা করেছেন এবং এতে তার অবস্থার নাটকীয় উন্নতি হয়েছে। চিকিৎসা দেয়ার ৪৮ ঘণ্টা পর ওই ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি।

ইনফ্লুয়েঞ্জার চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয় ওসেলটামিভির নামে একটি ওষুধ ও এইচআইভির চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধের নাম লোপিনাভির এবং রিটোনাভির। 

ব্যাংককের রাজাভিথি হাসপাতালের ফুসফুস বিশেষজ্ঞরা জানান, তাদের আবিষ্কৃত ওষুধ প্রয়োগে রোগ সম্পূর্ণ সেরে যাচ্ছে, এমন নয়। তবে দ্রুত রোগীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটছে। এটাকে যথেষ্ট বড় সাফল্য হিসেবে দেখছেন তারা।

থাইল্যান্ডের এই চিকিৎসক আরও জানান, তারা সেই রোগীকে অ্যান্টি-ফ্লু ওষুধ ওসেলটামিভির এবং এইচআইভির চিকিৎসায় ব্যবহৃত লোপিনাভির ও রিটোনাভিরের মিশ্রণ দিয়েছেন। তাই পদ্ধতিটি আরও ব্যবহার করা হবে কি না তা জানতে এবার দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গবেষণা প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করা হচ্ছে।

এ দিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় মাত্র ১০ দিনে নতুন একটি হাসপাতাল নির্মাণ করেছে চীন। সোমবার থেকে রোগীদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালটি উন্মুক্ত করা হয় বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর সিএনবিসি।

এসএমএম/এসকে

আরও পড়ুন