• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০, ০১:০৪ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০, ০১:০৪ এএম

৬ হাসপাতালে হবে চীনের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল

জাগরণ প্রতিবেদক
৬ হাসপাতালে হবে চীনের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল
প্রতীকী ছবি

চীনের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) টিকা করোনাভ্যাকের তৃতীয় ধাপের পরীক্ষামূলক প্রয়োগের জন্য প্রস্তুত বাংলাদেশ। সেটি হাতে আসার সঙ্গে সঙ্গেই ৬ হাসপাতালে শুরু হবে ট্রায়াল। মাঠ পর্যায়ে গবেষক নিয়োগ-তদারকের কাজও এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসা ৪ হাজার ২০০ চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী অংশ নিতে পারবেন এ ট্রায়ালে।  যে দেশই আগে ভ্যাকসিন উদ্ভাবন করুক, তা দ্রুত দেশে আনতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য সচিব আবদুল মান্নান।

চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের করোনা ভ্যাকসিনের নাম করোনাভ্যাক। এই মধ্যে পরীক্ষা দ্বিতীয় ধাপে সফল এই টিকা। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ব্রাজিলের পাশাপাশি বাংলাদেশেও চলবে এর তৃতীয় ধাপের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ।

ঢাকার ৬টি হাসপাতালে হবে করোনাভ্যাকের ট্রায়াল। হাসপাতালগুলোর মধ্যে আছে কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, হলি ফ্যামিলি, মহানগর ও মুগদা জেনারেল হাসপাতাল এবং ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিট-এক ও ইউনিট দুই।

স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসা ৪ হাজার ২০০ চিকিৎসক, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী অংশ নিতে পারবেন এ ট্রায়ালে। তবে ২ হাজার ১০০ জনের শরীরে করোনা টিকা আর বাকি ২ হাজার ১০০ জনকে দেয়া হবে টিকা সদৃশ ক্ষতিকারক নয় এমন ওষুধ। এই দুই দলের মধ্যে এর প্রতিক্রিয়া পর্যালোচনা করে টিকার কার্যকারিতা দেখবেন বিজ্ঞানীরা। এসময় কেউ অসুস্থ হলে, প্রতিকারের ব্যবস্থাও রয়েছে প্রকল্পে।

এ কাজে স্বেচ্ছাসেবীদের চিকিৎসা ও প্রণোদনা নিশ্চিতের ওপর জোর দিচ্ছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

করোনাভ্যাকের ট্রায়োলের জন্য মাঠ পর্যায়ে আড়াইশ গবেষকের প্রশিক্ষণ এবং তাদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী সংগ্রহের কাজও শেষ হয়েছে এরই মধ্যে।

জাগরণ/ কেএপি