• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ৩, ২০২১, ০৪:৩৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ৩, ২০২১, ০৪:৪৭ পিএম

রাতে গলা শুকিয়ে যাওয়া কঠিন রোগের লক্ষণ

রাতে গলা শুকিয়ে যাওয়া কঠিন রোগের লক্ষণ

আপনার কি মাঝরাতে গলা শুকিয়ে যায়? অনেক পানি পানের পরও যদি এমনটা হয়, তবে কঠিন স্বাস্থ্যঝুঁকির নির্দেশনা দেয়। চিকিৎসকদের মতে, ঘুমের মধ্যে গলা শুকিয়ে যাওয়া কিন্তু বিভিন্ন বড় রোগের প্রাথমিক লক্ষণ হতে পারে। আর তা যদি হয় নিয়মিতই, তবে শিগগিরই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। চলুন দেখে নেই কী কী কারণে গলা শুকিয়ে যাওয়ার এই উপসর্গটি হতে পারে।

ডায়াবেটিস

ডায়াবেটিস থাকলে গলা শুকিয়ে যায়। এটি সুগারের অন্যতম উপসর্গ। শরীরে সুগার বেড়ে গেলে ঘন ঘন প্রস্রাব হয়। এতে শরীরে পানির স্বল্পতা হয়। ফলে গলা শুকিয়ে যায়।

জেরোস্টোমিয়া ও সেপসিস

জেরোস্টোমিয়া নামক এক রোগের কারণে মুখে লালা কমে যায়। এ কারণে এই ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। সেপসিস-এর মতো ভয়ানক রোগেরও উপসর্গ এটি।

উচ্চ রক্তচাপ

উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার কারণে শরীরে পানির মাত্রা ঠিক থাকে না। এর ফলে গলা শুকিয়ে যায়।

নিশ্বাসে সমস্যা

অনেকেই ঘুমের সময় মুখ দিয়ে শ্বাস নেন। বিশেষত, সর্দি হলে বা নাক বন্ধ থাকলে মুখ দিয়ে নিশ্বাস নেওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। এছাড়াও যাদের হাঁপানির সমস্যা থাকে তারা নাকের বদলে অনেক সময় মুখ দিয়ে নিশ্বাস নেন। ফলে সহজেই মুখের ভেতর শুকিয়ে যায়।

ডিহাইড্রেশন

শরীরে ডিহাইড্রেশন হলে এই সমস্যা হতে পারে। বিশেষত শিশুদের ক্ষেত্রে ডিহাইড্রেশন কিন্তু মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এর ফলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।
 

ধূমপান-অ্যালকোহল

যাদের ধূমপান ও অ্যালকোহল পানের অভ্যাস আছে। তাদেরও এই সমস্যা হতে পারে। একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যারা প্রতিদিন ধূমপান ও অ্যালকোহল পান করেন তাদের মধ্যে ৩৯ শতাংশ মানুষের মুখের লালা উৎপাদন কমে যায়। অ্যালকোহল শরীরকে শুষ্ক করে তোলে ও পানির চাহিদা তৈরি করে।

এছাড়া লিভার, হার্ট, কিডনি কার্যক্ষমতা হারাতে শুরু করলেও গলা শুকিয়ে যাওয়ার প্রবণতা দেখা দিতে পারে।