• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮
প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২১, ০৪:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৭, ২০২১, ০৪:১৫ পিএম

বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস

চাপ নেবেন না উচ্চ রক্তচাপে

চাপ নেবেন না উচ্চ রক্তচাপে

১৭ মে সোমবার বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস। ২০০৬ সাল থেকে বাংলাদেশ দিবসটি পালন করে আসছে। ওয়ার্ল্ড হাইপারটেনশন লিগের সদস্য হিসেবে হাইপারটেনশন কমিটি অব ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ দিবসটি পালনে নানা উদ্দ্যোগ নেয়। দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘রক্তচাপ মাপুন, নিয়ন্ত্রণ করুন ও বেশি দিন বাঁচুন’।

শরীরের নীরব ঘাতক এই উচ্চ রক্তচাপ। ধমনিতে রক্তপ্রবাহের চাপ স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকলে সেটিকে উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন বা হাই ব্লাড প্রেশার বলা হয়। এই রোগটি যেকোনো সময়ই শরীরকে নিস্তেজ করে দিতে পারে। এই রোগ একবার হলে তা নিরাময় সম্ভব নয়। তবে নিয়ন্ত্রণ সম্ভব। তাই এই রোগে সুস্থ থাকার মন্ত্র হচ্ছে মানসিক চাপ না নেওয়া। মানসিক চাপ না নিলেই উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ থাকে। সেই সঙ্গে নিয়মিত চেকআপের মাধ্যমে তদারকি করাও জরুরি। এসব বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতেই প্রতিবছর দিবসটি পালিত হয়।

এ বছর মহামারি করোনার কারণে সারা বিশ্বের কোথাও তেমন কোনো কর্মসূচির আয়োজন করা হয়নি। বাংলাদেশেও দিবসটি উপলক্ষে তেমন কোনো আয়োজন থাকছে না। তবে উচ্চ রক্তচাপে স্বাস্থ্য সচেতনতার কথা তো চিকিৎসকরা বলেই যাচ্ছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে প্রায় ১৫০ কোটি মানুষ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন। প্রতিবছর প্রায় ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয় এই রোগে। বছর ঘুরে এর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। 

এদিকে সর্বশেষ প্রকাশিত ‘বাংলাদেশ ডেমোগ্রাফিক অ্যান্ড হেলথ সার্ভে ২০১৭-১৮’ এর তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৪ জনে ১ জন উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, উচ্চ রক্তচাপের কারণে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। বয়স ৪০ হয়ে গেলে বছরে অন্তত একবার রক্তচাপ মাপা উচিত। স্বাস্থ্যসম্মত খাবার ও সুস্থ জীবনযাপনের অভ্যাসও গড়ে তোলা জরুরি।

এছাড়া চিকিৎসক নিয়মিত ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দিলে তা-ও মেনে চলতে হবে। না হলে ধীরে ধীরে কিডনি সমস্যা, হার্ট অ্যাটাক, মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ হতে পারে।

উচ্চ রক্তচাপের সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ না থাকলেও মানসিক চাপ, বংশগত কারণে, শারীরিক পরিশ্রম না করা, অতিরিক্ত লবণ খাওয়া, রক্তের চিনির মাত্রা বেড়ে যাওয়া, ফাস্টফুড ও হরমোনজনিত কারণে রক্তচাপ বেড়ে যায়। এসব বিষয়ে বিশেষ সতর্কতাসহ সচেতনতা বাড়ানো ও পাশাপাশি নিয়মিত ওষুধ সেবন হতে পারে উচ্চ রক্তচাপের সমাধান।