• ঢাকা
  • রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩১ ভাদ্র ১৪২৬
প্রকাশিত: মে ২১, ২০১৯, ০৫:৫০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২১, ২০১৯, ০৫:৫২ পিএম

অরুণাচলে জঙ্গি হামলায় এনপিপির বিধায়ক সহ নিহত ১১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
অরুণাচলে জঙ্গি হামলায় এনপিপির বিধায়ক সহ নিহত ১১

 

সন্দেহভাজন নাগা জঙ্গিরা খুন করল অরুণাচলের বিধায়ক এবং তার পরিবারের সদস্য সহ ১০ সঙ্গীকে। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে অরুণাচলের তিরাপ জেলার বোগাপানি গ্রামে।

প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, প্রায় ২০ জন আততায়ী ঘিরে ফেলে পশ্চিম খোনসা বিধানসভার বিধায়ক তিরং আবো এবং তার সঙ্গীদের। প্রত্যেকের হাতেই ছিল অত্যাধুনিক স্বয়ংক্রিয় রাইফেল। তিরং এবং তার সঙ্গীদের ঘিরে ধরে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে আততায়ীরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তিরং এবং তার দশ সঙ্গীর। নিহতদের মধ্যে তিরংয়ের পরিবারের ছয় সদস্যও আছেন। তারপর গাড়িটিও জ্বালিয়ে দেয় জঙ্গিরা।  

তিরাপের জেলাশাসক পি এস থুঙ্গন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন, আততায়ীদের হাতে বিধায়ক-সহ ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ নাগা জঙ্গি সংগঠন এনএসসিএন(খাপলাং) গোষ্ঠীকে সন্দেহ করছে। তিরাপ জেলায় ওই সংগঠনের যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে। খাপলাং গোষ্ঠীর একটি অংশ আলোচনায় বসার বার্তা দিলেও, ওই সংগঠনের মায়ানমার থেকে নিষ্ক্রিয় অংশ এখনও আলোচনায় রাজি নয়।

ন্যাশনাল পিপলস পার্টির ওই বিধায়ক সদ্য সমাপ্ত অরুণাচল বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিম খোনসা কেন্দ্র থেকেই প্রতিদ্বন্ধিতা করেছিলেন এবং তিনি তার কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছিলেন। অরুণাচল পুলিশের আইজি সুনীল গর্গও জানিয়েছেন, তাঁরা সন্দেহ করছেন জঙ্গিরাই হত্যা করেছে তিরং এবং তাঁর সঙ্গীদের। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে অাসাম রাইফেলস এবং পুলিশ। তারা জঙ্গিদের খোঁজে চিরুণি তল্লাশি শুরু করেছে।

মঙ্গলবার নিজস্ব টুইটার হ্যান্ডেলে এই শোক সংবাদের সত্যতা স্বীকার করেছেন মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা। নিহত দলীয় বিধায়ক ও তার পরিবারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন সাংমা।

টুইটারে তিনি বলেন, ‌‘অরুণাচল প্রদেশের দলীয় বিধায়ক টিরং আবোহ এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের মৃত্যুতে স্তম্ভিত ও শোকস্তব্ধ এনপিপি। এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং প্রধানমন্ত্রীর দফতরকে হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার আবেদন জানাচ্ছি।’

সূত্র : এই সময়

এসজেড

Islami Bank