• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: আগস্ট ১৪, ২০১৯, ০৫:৩৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ১৪, ২০১৯, ০৫:৩৮ পিএম

‍‍‘বীরচক্র‍‍’ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন অভিনন্দন বর্তমান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
‍‍‘বীরচক্র‍‍’ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন অভিনন্দন বর্তমান
ভারতীয় উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান- ছবি: দ্য গার্ডিয়ান

ভারতের আকাশ সীমায় অবৈধভাবে ঢুকে পড়া পাকিস্তানী এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের বিরুদ্ধে সাহসী 'ডগফাইট' ও সেটিকে ধ্বংস করায় বিমান বাহিনীর উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে 'বীরচক্র' সম্মাননায় ভূষিত করা হচ্ছে। 

বুধবার (১৪ আগস্ট) ভারতীয় বার্তা সংস্থা ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস প্রকাশিত এক খবরে বলা হয়, বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ক্ষমতাসীন মোদী সরকারের পক্ষ থেকে অভিনন্দনকে দেশটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সামরিক মর্যাদা 'বীরচক্র' সম্মাননা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

চলতি বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় চালানো জঙ্গি হামলায় আধা সামরিক বাহিনীর অন্তত ৪৪ জওয়ানের মৃত্যু হয়। মূলত মর্মান্তিক সেই হামলার ১৩ দিনের মাথায় ভারতীয় বিমান বাহিনী জঙ্গি নিধনের নামে পাকিস্তানের সীমান্ত সংলগ্ন বালাকোট জেলায় ঢুকে একটি এয়ার স্ট্রাইক পরিচালনা করে। যার জেরে নতুন করে উত্তজনা সৃষ্টি হয় পাক-ভারত সম্পর্কে। 

এতে ভারতের পক্ষ থেকে পাক মদতপুষ্ট বেশ কয়েকটি জঙ্গি ঘাটি ধ্বংস করার কথা জানানো হলেও; সেই হামলায় পাকিস্তানের কেবল বনভূমি ধ্বংস হয়েছে বলে দাবি পাক কর্তৃপক্ষের।

যার প্রেক্ষিতে ভারতের সীমান্ত এলাকায় ঢোকার চেষ্টা চালায় পাকিস্তানের বেশ কয়েকটি যুদ্ধ বিমান। তবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর উইং কমান্ডার অভিনন্দন ভার্থামান তার 'মিগ-২১' বিমান দিয়ে পাকিস্তানের 'এফ-১৬' যুদ্ধবিমানকে ড্রাগফাইটে নিয়ন্ত্রণ রেখার পাশে ধ্বংস করে।

যদিও সেই পাক যুদ্ধবিমান ধ্বংস করার পরপরই ভেঙে পড়ে অভিনন্দনের বিমানটিও। আর এতেই তিনিও ভুল বসত নেমে পড়েন পাকিস্তানের সীমান্ত এলাকায়। যার প্রেক্ষিতে পাকিস্তানি সেনাদের হাতে তাকে আটক হতে হয়।

ঘটনার বেশ কয়েকদিন পর বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে অভিনন্দনকে ভারতের কাছে ফিরিয়ে দিতে বাধ্য হয় পাকিস্তান। তবে সে সময় তার ওপর নানা অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয় বলে দাবি ভারতীয় বিমান বাহিনীর এই উইং কমান্ডারের।

এসকে

আরও পড়ুন

Islami Bank