• ঢাকা
  • সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ১৯, ২০১৯, ০২:৫৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ১৯, ২০১৯, ০২:৫৯ পিএম

বাড়ছে সংকট, দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল

ইরানজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ইরানজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ

জ্বালানি তেলের মূল্য ৫০ শতাংশ বৃদ্ধির প্রতিবাদে মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সিরজান শহরে তীব্র বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে সরকারবিরোধী এই বিক্ষোভে ছড়িয়ে পড়েছে গোটা দেশে। যেখানে অংশ নিচ্ছে হাজার হাজার লোক।

দ্রুত বাড়তে থাকা এই আন্দোলন প্রতিহতে প্রশাসনকে এরই মধ্যে শক্ত অবস্থান নিতে দেখা গেছে। চলমান সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত অন্তত ১২ জনের প্রাণহানি ও আরও কমপক্ষে শতাধিক লোক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। যাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

যদিও এমন প্রেক্ষাপটে গোটা দেশের ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দিয়েছে রুহানি সরকার। তীব্র বিক্ষোভের মুখে রবিবার (১৭ নভেম্বর) থেক প্রায় সব ধরনের ইন্টারনেট সংযোগ ব্লক রাখার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। খবর দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের।

কর্তৃপক্ষের বরাতে তুর্কি বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি জানায়, শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাজপথে নেমে রাতভর তীব্র বিক্ষোভ করে সাধারণ মানুষ। টানা চার দিন যাবত চলা এই বিক্ষোভে ইতোমধ্যে গ্রেফতারের শিকার লোকের সংখ্যাও হাজার ছাড়িয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, সরকারি ঘোষণায় রেশন হিসেবে দেওয়া লিটার প্রতি পেট্রোলের দাম ৫০ শতাংশ বাড়ানোর কথা জানায় কর্তৃপক্ষ। তাছাড়া ব্যক্তিগত গাড়ির জন্য মাসিক বরাদ্দ হিসেবে তেলের পরিমাণ ৬০ লিটার নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। এর বাইরে বাড়তি পেট্রোল ক্রয় করার জন্যও বলা হয়।

সরকারের পক্ষ থেকে এই ঘোষণার পরই দেশজুড়ে ব্যাপক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়। যার অংশ হিসেবে এরই মধ্যে মাশহাদ, কেরমান, তেলসমৃদ্ধ খুজেস্তানসহ বিভিন্ন শহরের রাজপথে নেমে আসেন হাজার হাজার জনগণ। যদিও এই বিক্ষোভের তীব্রতা বেশি ছিল সিরজান শহরে। সেখানেও রাতভর প্রতিবাদ বিক্ষোভে অংশ নেয় বিক্ষুব্ধ ইরানিরা। 

হতাহতদের প্রসঙ্গে স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদ বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে গুলি চালানোর কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে কোনো ব্যক্তি যদি নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত কিংবা আহত হন, তার অবশ্যই তদন্ত করা হবে।’

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের একের পর এক নিষেধাজ্ঞার ফলে ইরানের অর্থনীতি এমনিতেই চাপের মুখে রয়েছে। যে কারণে চলমান সংকট কাটাতেই সরকারি রেশন কাটছাঁটের উদ্যোগ নেয় কর্তৃপক্ষ। আর এ ঘোষণার রাতেই রক্তাক্ত হয় সিরজানের রাজপথ।

এসকে