• ঢাকা
  • রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫ আশ্বিন ১৪২৭
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৪, ২০১৯, ০১:৫৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২৪, ২০১৯, ০১:৫৩ পিএম

পাঁচ রাজ্যে ক্ষমতা হারালো বিজেপি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
পাঁচ রাজ্যে ক্ষমতা হারালো বিজেপি
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী- ফাইল ফটো

ভারতের আরও একটি রাজ্য পরাজয় ঘটলো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দল বিজেপির। এক বছর আগেও গোটা ভারতে বিজেপি ৭০ শতাংশের বেশি রাজ্যে ক্ষমতায় ছিল। মাত্র এক বছরের মধ্যেই সেই সংখ্যা নেমে এসেছে ৪০ শতাংশে। ৬০ শতাংশের বেশি রাজ্য এখন বিজেপি বিরোধী দলগুলোর হাতে চলে গিয়েছে।

সর্বশেষ সোমবার (২৩ ডিসেম্বর) ঝাড়খণ্ডে পরাজিত হওয়ার মাধ্যমে গত এক বছরের মধ্যে ভারতের পাঁচটি রাজ্যে ক্ষমতা হারাল বিজেপি।

২০১৮ সালে ভারতের কেন্দ্রীয় ক্ষমতাসীন দল বিজেপি রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ এবং ছত্তিশগড়ে হেরে যায়। তারপর অবশ্য সেই হার সামাল দিয়ে ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে বিপুল জন সমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় আসে বিজেপি। কিন্তু পরবর্তীতে লোকসভা ভোট ও পর তিন রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়তে হয় বিজেপিকে। তার মধ্যে দুটি রাজ্যের পুরোপুরি দখল হারায় বিজেপি। সেই কারণেই এক বছর আগে যেখানে ভারতের ৭০ শতাংশ রাজ্যে বিজেপির নিয়ন্ত্রণ ছিল, এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ৩৫ থেকে ৪০ শতাংশে। বিহার ও দিল্লিতেও ভোট আসন্ন। ওয়ানইন্ডিয়া নিউজ

নতুন বছরের শুরুতেই এই দুই রাজ্যের ভোট নিয়ে স্বভাবতই চাপে থাকবে বিজেপি। লালু প্রসাদের দল আরজেডি সাফ জানিয়ে দিয়েছে ঝাড়খণ্ডের ফলাফল বিহারের ভোটেও প্রভাব ফেলবে। আর কংগ্রেস বলেছে, দিল্লিতেও বিজেপির একইরকম পরিণতি হবে। গত এক বছরে পরাজয় ঘটে যাওয়া পাঁচ রাজ্যের মধ্যে তিনটি রাজ্যেই ক্ষমতায় ছিল বিজেপি। সেই তিনটি রাজ্য হল মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও রাজস্থান।

এই তিন রাজ্যেই বিজেপির কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয় কংগ্রেস। বাকি দুই রাজ্য তেলেঙ্গানা ও উড়িষ্যায় ক্ষমতায় ছিল আঞ্চলিক দলগুলি। তারাই ক্ষমতায় ফেরে আবার। সেখানে বিজেপি তাদের কোনও প্রভাব ফেলতে পারেনি।

এর আগে চলতি বছরের মে মাসে লোকসভা নির্বাচনের জিতে দ্বিতীয় বারের মতো ক্ষমতায় এসেছে বিজেপি। এরপর চলতি বছরের অক্টোবরে মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানা রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনেও আশাতীত সাফল্য পায়নি বিজেপি। হরিয়ানায় ভোটে হেরে কোনরকমে ম্যানেজ করে সরকার গড়ে বিজেপি। হাত থেকে ছিটকে যায় মহারাষ্ট্র। এবার ঝাড়খণ্ডেও একই পরিস্থিতি হল বিজেপির। কংগ্রেস জোটের কাছে ধরাশায়ী হতে হল মোদীর দলকে।

এসকে