• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৩, ২০২০, ০২:৪৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৩, ২০২০, ০২:৫৯ পিএম

অস্ট্রেলিয়ার দাবানল

পোড়া মাটির বুক চিরে নতুন প্রাণের জাগরণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
পোড়া মাটির বুক চিরে নতুন প্রাণের জাগরণ
পোড়া মাটির বুক চিড়ে নতুন প্রাণের জাগরণ- ছবি: ড্য ডেইলি মেইলের সৌজন্যে

গত সেপ্টেম্বরে শুরু হওয়া ভয়াবহ দাবানলে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে অস্ট্রেলিয়ায় বিশাল বনাঞ্চল। সম্পুর্ণ এলাকাজুড়ে চোখে পড়ছে কেবলই ছাই-ভস্ম আর জ্বলসানো জীবজন্তুর মরদেহ। বিভিন্ন সংস্থার তথ্য মতে প্রাণঘাতী এই বহ্নিপ্রলয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেছে প্রায় ৫০ কোটিরও বেশি বন্যপ্রাণী। আর দাবানলের আগুনে কত গাছ পুড়ে গেছে তার কোনো হিসাব নেই।

-ছবি:: দ্য ডেইলি মেইল

তবে এরইমধ্যে সেই নির্জীব ধ্বংসস্তূপের মাঝ থেকে উঁকি দিচ্ছে নতুন প্রাণ। কয়েকটি এলাকায় ছাই ভেদ করে প্রাণের চিহ্ন পাওয়া গেছে। অল্প অল্প করে গজিয়ে উঠতে শুরু করেছে ঘাস ও গাছের চারা।

রোববার (১২ জানুয়ারি) বিবিসি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। প্রকৃতিতে তাই ফিরেছে স্বস্তির নিঃশ্বাস। আর বৃষ্টির কারণেই দাবানলের ধ্বংসস্তূপে মাথা তুলছে সবুজ প্রাণ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, প্রকৃতির রোষের শিকার অস্ট্রেলিয়ার পোড়া বনে নবজীবনের সঞ্চার হচ্ছে। পুড়ে যাওয়া জমিতেই দেখা গেছে সবুজের আভা, মরা গাছের ডালে উঁকি দিচ্ছে গোলাপি ফুল। দুই মাসের দীর্ঘ দাবানলের পর সেখানে আবার নতুন সাজে সেজে উঠছে প্রকৃতি।

আলোকচিত্র শিল্পী মারি লোয়ে অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলস অঞ্চলের কাছে সমুদ্র তীরবর্তী কুলনারা এলাকায় গিয়ে বেশ কিছু তুলে এনেছেন। এসব ছবিতে পুড়ে যাওয়া গাছের গুঁড়িতে গজিয়ে ওঠা গোলাপি রঙের কুঁড়ি দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

-ছবি: দ্য ডেইলি মেইল

মারি লোয়ে বলেন, এক ধরনের অতিপ্রাকৃত নীরবতার মধ্যে পুড়ে যাওয়া গাছের গুঁড়িগুলোর পাশ দিয়ে যখন হেঁটে যাচ্ছিলাম, তখন মাটি থেকে বাতাসে ছাই উড়ে যাচ্ছিল। ভয়াবহ আগুনই পারে এমন ছাপ রেখে যেতে। তবে আশার কথা হলো, আমি নতুন করে ঘাস আর কুঁড়ি গজাতে দেখেছি। এই পুনর্জীবনের চিহ্নই আমরা কামনা করছিলাম। একটি বনের পুনর্জন্মের মুহূর্তের সাক্ষী আমি।

এসকে