• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২০, ০৯:৩১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৮, ২০২০, ০৯:৩৩ পিএম

উচ্চকক্ষ সিনেটে চূড়ান্ত বিচার

অভিশংসন এড়াতে বিশিষ্ট আইনজ্ঞদের শরণাপন্ন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
অভিশংসন এড়াতে বিশিষ্ট আইনজ্ঞদের শরণাপন্ন ট্রাম্প
ডোনাল্ড ট্রাম্প কি পারবেন অভিশংসন শঙ্কা কাটিয়ে উঠতে?- জাগরণ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

শীঘ্রই অভিশংসন ইস্যুতে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে চূড়ান্ত বিচারের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই বিচার প্রক্রিয়াকে সামনে রেখে এরইমধ্যে একাধিক বিশিষ্ট আইনজ্ঞের শরণাপন্ন হয়েছেন তিনি।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এমন তথ্যই জানা গেছে।

মার্কিন কংগ্রেসের সাবেক স্বতন্ত্র কাউন্সিলর ও বিশিষ্ট আইনজ্ঞ কেনেথ স্ট্যার- ছবি: আল জাজিরা

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা আল জাজিরা তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, অভিশংসন বিচারে তার পক্ষে আইনি লড়াই পরিচালনার জন্য মার্কিন কংগ্রেসের সাবেক স্বতন্ত্র কাউন্সিলর ও বিশিষ্ট আইনজ্ঞ কেনেথ স্ট্যারের শরণাপন্ন হয়েছেন ট্রাম্প। ১৯৯৮ সালে এই আইনজীবীর বিচক্ষণতার জোরে উচ্চকক্ষ সিনেটে অভিংশসনের হাত থেকে রক্ষা পান সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন। 

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, সেই সঙ্গে ট্রাম্পের সম্ভাব্য কৌঁসুলি হিসেবে আলোচনায় রয়েছে দেশটির বরেণ্য আইনজীবী অ্যালেন ডেরশউইচের নামও।

মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষে ১১০ সিনেটরের শপথ গ্রহণ- ফাইল ফটো

এর আগে বিবিসি ও সিএনএনসহ একাধিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে জানানো হয়, অভিশংসন ইস্যুতে উচ্চকক্ষ সিনেটের বিচারে ট্রাম্প পক্ষের আইনজীবী  দলের নেতৃত্ব দেবেন হোয়াইট হাউস কাউন্সিলর প্যাট সিপোলোনে ও ট্রাম্পের ব্যক্তিগত অ্যাটর্নি জে সেকুলো।

মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে শুরু হবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত বিচার কার্যক্রম। সে লক্ষ্যে এরইমধ্যে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি জন রবার্টসের অধীনে সেনেটরদের শপথ গ্রহণ করেছেন ১০০ সদস্যের সিনেট দল। অভিশংসন বিচারে এসব সদস্য জুরির ভূমিকায় থাকবেন। শুনানির পর এ জুরিরাই প্রতিনিধি পরিষদের আনা অভিযোগের ভিত্তিতে ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হবে কিনা, সে সিদ্ধান্ত নেবেন।   বিবিসি

এসকে

আরও পড়ুন