• ঢাকা
  • রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০, ০৪:৩৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০, ০৪:৩৭ পিএম

নীরবতা ভাঙলেন মোদী, শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখার আর্জি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
নীরবতা ভাঙলেন মোদী, শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখার আর্জি
নরেন্দ্র মোদী ● আনন্দবাজার পত্রিকা

তিনদিন ধরে জ্বলছে দিল্লি। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। এ নিয়ে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক মহলে উত্তপ্ত হলেও, এ যাবৎ নীরব ছিলেন তিনি। অবশেষে বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) নীরবতা ভাঙলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

দিল্লিবাসীকে শান্তি ও সৌভ্রাতৃত্ব বজায় রাখার আর্জি জানালেন তিনি।

এক টুইটা বার্তায় নরেন্দ্র মোদী বলেন, শান্তি এবং সম্প্রীতি আমাদের সংস্কৃতির মূল কথা। দিল্লির ভাই-বোনেদের কাছে অনুরোধ, সর্বদা শান্তি এবং সৌভ্রাতৃত্ব বজায় রাখুন। যত দ্রুত সম্ভব দিল্লিতে শান্তি এবং স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসাটা জরুরি।

গত তিন দিন ধরে দিল্লিতে অশান্তি যখন তুঙ্গে, সেই সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আতিথেয়তার ব্যস্ত ছিলেন মোদী। ওই সময়ে রাজধানীর পরিস্থিতি নিয়ে একটি শব্দও খরচ করতে দেখা যায়নি তাকে। তা নিয়ে সমালোচনায় সরব হয়েছিলেন বিরোধীরাও। তবে প্রধানমন্ত্রী জানান, দিল্লির বিভিন্ন এলাকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন তিনি।

টুইটারে মোদী লেখেন, দিল্লির বিভিন্ন প্রান্তের পরস্থিতি খতিয়ে দেখেছি আমি। অতি দ্রুত যাতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, শান্তি ফিরে আসে, তার জন্য পুলিশ এবং অন্য সংস্থাগুলো ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় কাজ করে চলেছে।

এর আগে দিল্লির পরিস্থিতি নিয়ে এদিন দুপুরেই সাংবাদিক বৈঠক করেন কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভাপতি সোনিয়া গান্ধী। মানুষের মনে ঘৃণা এবং আতঙ্ক ছড়ানোয় সেখানে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে একহাত নেন তিনি। প্রশ্ন তোলেন, মৃতের সংখ্যা ২০ ছুঁলেও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব কেন চুপ? দিল্লির আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ইস্তফার দাবিও তোলেন সোনিয়া। তারপরই টুইটারে নীরবতা ভাঙেন মোদী।

এসএমএম