• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন, ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: মার্চ ৩০, ২০২০, ০৩:৫১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ৩০, ২০২০, ০৩:৫১ পিএম

গোটা হারেম নিয়েই আইসোলেশনে থাইল্যান্ডের শাসক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
গোটা হারেম নিয়েই আইসোলেশনে থাইল্যান্ডের শাসক
করোনা সঙ্কটে গোটা হারেম নিয়েই আইসোলেশনে থাইল্যান্ডের শাসক ● বাংলাহান্ট

এখনও পর্যন্ত করোনা মোকাবেলার ওষুধ বা ভ্য়াকসিন আবিষ্কার হয়নি। তাই স্বেচ্ছায় গৃহবন্দি থাকাই ভাইরাস মোকাবেলার সেরা ওষুধই বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা।

বিশ্বব্য়াপী মহামারির সময়ে একজন নাগরিকের কাছে গৃহবন্দি থাকার মানে কী? টিভি দেখা, বই পড়া অথবা সোশ্য়াল মিডিয়ায় ডুবে থাকাই বেশিরভাগ মানুষের একঘেয়েমি কাটানোর উপায়। কিন্তু গৃহবন্দি বা আইসোলেশনের অর্থকে এক্কেবারে অন্য় পর্যায়ে নিয়ে গেলেন থাইল্য়ান্ডের রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন।

করোনা সঙ্কটে গোটা হারেম নিয়ে জার্মানির এক বিলাসবহুল হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে গেছেন থাই রাজা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্য়ম সূত্র ধরে ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময় জানায়, হারেমের ২০ জন সুন্দরী ও অসংখ্য় চাকর-বাকর নিয়ে এলাহি জীবন-যাপন করছেন রাজা। এজন্য় গোটা হোটেলটিই ভাড়া করেছেন তিনি। তবে রাজার সঙ্গে তার স্ত্রীরা হোটেলে রয়েছে কিনা জানা যায়নি।

থাইল্য়ান্ডের আইন অনুযায়ী, রাজা বা রাজ পরিবারের সদস্য়দের সমালোচনা করা দণ্ডনীয় অপরাধ। দোষী প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ ১৫ বছর জেল হতে পারে। কিন্তু আইনের তোয়াক্কা না করে অনেক থাই নাগরিকই রাজার সমালোচনায় সরব। সেদেশের সোশ্য়াল মিডিয়ায় ‘#হোয়াইডুউইনিডঅ্যাকিং’ রীতিমতো ট্রেন্ডিং।

চিকিৎসকরা অবশ্য় বলছেন, দলবল নিয়ে এভাবে কোয়ারেন্টাইনে থেকে করোনার হাত বাঁচা মুশকিল। 

এসএমএম