• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন, ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: এপ্রিল ১, ২০২০, ০৪:৫২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১, ২০২০, ০৪:৫২ পিএম

সাগর-মহাসাগর দাপিয়ে বেড়ানো রুজভেল্টে এখন মৃত্যু আতঙ্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
সাগর-মহাসাগর দাপিয়ে বেড়ানো রুজভেল্টে এখন মৃত্যু আতঙ্ক
মার্কিন রণতরী থিওডোর রুজভেল্ট

সাগর-মহাসাগর দাপিয়ে বেড়ানো মার্কিন রণতরী থিওডোর রুজভেল্ট এখন করোনার থাবায় অসহায়। শতাধিক নাবিক আক্রান্ত হওয়ায় প্রতি মুহূর্তে মৃত্যু আতঙ্কে ভুগছে রণতরীটিতে থাকা ৪ হাজারের বেশি নৌ-সেনা।

বাঁচার আকুতি জানিয়ে নজিরবিহীনভাবে পেন্টাগন বরাবর চিঠি দিয়েছেন ক্যাপ্টেন। দাবি জানিয়েছেন, জাহাজের সবাইকে আইসোলেশনে নেয়ার।

সমুদ্র-সমরে মার্কিন শ্রেষ্ঠত্বের অন্যতম কারণ, ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্ট। নব্বই-র দশকে উপসাগরীয় যুদ্ধে বিমানবাহী এ রণতরীর দাপট দেখে বিশ্ব। মধ্যপ্রাচ্যে দাপট ধরে রাখতেও বড় ভূমিকা এর।

৯০টি যুদ্ধবিমান ও হেলিকপ্টার বহনে সক্ষম এ রণতরী এখন করোনাভাইরাসের হানায় কুপোকাত।

এরইমধ্যে প্রাণঘাতী ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে, জাহাজের শতাধিক নাবিকের শরীরে। হুমকিতে, রণতরীতে দায়িত্বরত ৪ হাজারের বেশি সেনা সবাই।

দিন দিন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায়, মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) নৌ-সেনার প্রাণ বাঁচানোর আকুতি জানিয়ে পেন্টাগনের কাছে চার পৃষ্ঠার চিঠি পাঠিয়েছেন ক্যাপ্টেন।

রণতরীর ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ের বলেন, আমরা তো কোন যুদ্ধের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি না। তাহলে সেনাদের কেন এভাবে মরতে হবে। এখানই ন্যূনতম সেবা দেয়া সম্ভব না হলে হারাতে হবে বিশ্বস্ত এসব সম্পদ। এ জন্য জরুরি ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত প্রয়োজন।

প্রশান্ত মহাসাগরে মোতায়েন করা জাহাজটি বর্তমানে গুয়াম বন্দরে অবস্থান করছে। এর আগে ডায়মন্ড প্রিন্সেসসহ বেশ কয়েকটি প্রমোদতরীতে ছড়ায় করোনাভাইরাস। তবে কোনও রণতরীতে ব্যাপকহারে সংক্রমণের ঘটনা এটাই প্রথম।

এসএমএম