• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭
প্রকাশিত: জুলাই ১২, ২০২০, ০৬:১৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ১২, ২০২০, ০৬:১৯ পিএম

চীন ইস্যুতে ভারতের পাশে ট্রাম্পের অবস্থান নিয়ে সন্দিহান বোল্টন

এস এম সাব্বির খান
চীন ইস্যুতে ভারতের পাশে ট্রাম্পের অবস্থান নিয়ে সন্দিহান বোল্টন
প্রতীকী ছবি

চলমান উত্তেজনা কিছুটা কমলেও এখনো ভারত-চীন সীমান্তে অনিশ্চিত পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বিশেষ করে প্যাংগং লেক অঞ্চলে চীনা সামরিক স্থাপনার অবস্থান ও সেনাদের উপস্থিতি এবং ভারতের ক্রমাগত সামরিক শক্তির মজুত বৃদ্ধির কারণে এখনও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না অপ্রত্যাশিত সংঘর্ষের সম্ভাবনা।

এদিকে চীনের সঙ্গে ভারতের এই চলমান সংকটের ইস্যুতে একাধিকবার হুঁশিয়ারি উচ্চারণের পাশাপাশি সামরিক সহযোগিতা পাঠানোর কথাও জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রেক্ষাপট বিবেচনা করলে বলা যায়, এক্ষেত্রে ভারতের প্রতি মার্কিন সমর্থন অব্যাহত থাকাবে সেটাই স্বাভাবিক। কারণ, বিশ্ব বাণিজ্য এবং রাজনৈতিক প্ল্যাটফর্মে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র উভয়েরই প্রতিদ্বন্দ্বী চীন। তাছাড়া হালে ভারতের সঙ্গে তুলোনামূলক বন্ধুসুলভ সম্পর্কও বিরাজ করছে ট্রাম্প প্রশাসনের।

তবে সত্যিই যদি ভারত-চীন যুদ্ধে জড়ানোর মত পরিস্থিতি তৈরি হয় সেক্ষেত্রে ডোনাল্ড ট্রাম্প কি ভারতের পাশে দাঁড়াবেন? এ প্রসঙ্গে নিজের অভিমত ব্যক্ত করতে গিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের প্রাক্তন প্রধান নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন। প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা।

গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে গালওয়ানে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারত-চিনের মধ্যে পরিস্থিতি যথেষ্ট উত্তপ্ত। এ প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বোল্টনকে প্রশ্ন করা হয়েছিল। সেই প্রশ্নের উত্তরেই সন্দেহ প্রকাশ করে বোল্টন বলেন, “জানি না উনি (ট্রাম্প) কার সঙ্গ দেবেন। আমার মনে হয় না, উনি নিজেও সেটা ভাল করে জানেন।” এরই পাশাপাশি বোল্টন যোগ করেন, “তবে আমার ধারণা ট্রাম্প চিনের সঙ্গে ভূকৌশলগত সম্পর্কের উপরই বেশি জোর দেবেন। বিশেষ করে ব্যবসার ক্ষেত্রে।”

ট্রাম্পের সাবেক নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা জন বোল্টন

সামনেই প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বোল্টের মতে, সব কিছুই নির্ভর করছে সেই নির্বাচনের উপর। নভেম্বরের নির্বাচনে যদি ট্রাম্প উতরে যান, তা হলে তিনি কী করবেন সেটা আন্দাজ করা মুশকিল। তবে ট্রাম্প চীনের সঙ্গে ব্যবসায়িক চুক্তিতে জোর দিতে পারেন বলেও ধারণা বোল্টের।

এই মুহূর্তে জাপান, ভারতসহ ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বেশ কয়েকটি দেশের সঙ্গে চীনের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। আমেরিকার সঙ্গেও চীনের সম্পর্ক খুব একটা মসৃণ নয়। উল্টো দিকে ভারতের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক যথেষ্টই ভাল। সে হিসেব কষে ভারতের প্রতি ট্রাম্পের সমর্থন বহাল থাকবে কিনা, সে প্রসঙ্গে বোল্ট বলেন, কোনও নিশ্চয়তা নেই যে ট্রাম্প ভারতকেই সমর্থন করবেন। তাকে ভারত-চীনের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে হয়তো জানানো হয়েছে। কিন্তু ট্রাম্পের কাছে ইতিহাসের কোনও গুরুত্ব নেই। তা ছাড়া ট্রাম্প ভারত-চীনের এই সংঘর্ষের ইতিহাস সম্পর্কে কতটা ওয়াকিবহাল, সে বিষয়েও আমার সন্দেহ আছে।'

এসকে