• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০, ০৬:৫৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০, ০৬:৫৫ পিএম

কাল প্রথম প্রাক-নির্বাচনী যুক্তিতর্কে মুখোমুখি ট্রাম্প-বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
কাল প্রথম প্রাক-নির্বাচনী যুক্তিতর্কে মুখোমুখি ট্রাম্প-বাইডেন

প্রচলিত রীতি অনুসারে নিজেদের প্রথম প্রাক-নির্বাচনী যুক্তিতর্কে আগামীকাল মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দুই হাইভোল্টেজ প্রার্থী- রিপাবলিকান দলের ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ডেমোক্রাট  দলের প্রার্থী ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। 

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইও অঙ্গরাজ্যের স্ট্যাট সিটি ক্লিভল্যান্ডে মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে প্রার্থীদের এবারের প্রাক-নির্বাচনী যুক্তিতর্ক অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব; যা রাষ্ট্রয়ত্ত্ব টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচারিত হবে। মূলত প্রার্থীদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের এই প্রথম আয়োজনের মধ্যদিয়েই আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হতে যাচ্ছে আসন্ন মার্কিন নির্বাচনের কাউন্টডাউন, যার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষমান দেশটির জনগণ এবং গোটা বিশ্বের মানুষ।

প্রথম পর্বের প্রাক-নির্বাচনী ট্রাম্প-বাইডেন বাকযুদ্ধে নিজেদের নির্বাচনী ইশতেহার, কার্যক্রম ও জনসমর্থন অর্জনের লক্ষ্যে প্রতিদ্বন্দ্বীর তুলোনায় নিজের এগিয়ে থাকার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে  মার্কিন রাষ্ট্রনীতি ও কূটনৈতিক পর্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ অন্তত ৫টি বিষয় হতে চলেছে মূল আলোচ্য বিষয়- এমনটাই জানিয়েছে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুসারে এ পর্বের আলোচনায় যে ৫টি বিষয় মূল ইস্যুতে পরিণত হতে পারে তার একটি হচ্ছে আসন্ন নির্বাচন, নির্বাচনী ফলাফল ও ট্রাম্পের ক্ষমতা হস্তান্তর প্রসঙ্গে করা সাম্প্রতিক মন্তব্যের বিষয়টি। এক্ষেত্রে নির্বাচনে হেরে গেলে জোরপূর্বক ক্ষমতায় থাকার যে বিতর্কিত মন্তব্য ট্রাম্প করেছেন, বাইডেনের প্রশ্নের মুখে তার কী জবাব দেন ট্রাম্প, সেটি দেখার মতো বিষয়  হতে পারে বলেই জানিয়েছে তারা।

পাশাপাশি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে সৃষ্ট মহামারি মোকাবেলায় এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থা সংক্রান্ত বিভিন্ন ইস্যুতে ট্রাম্প প্রশাসনের ব্যর্থতার বিষয়টিও মার্কিন প্রেসিডেন্ট  প্রতিপক্ষ প্রার্থী বাইডেনের তোপের মুখে পড়তে পারে বলে ধারণা করছে রয়টার্স। এছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম আলোচিত প্রেক্ষাপট হিসেবে বিবেচিত বর্ণবৈষম্য বিরোধী আন্দোলনের প্রসঙ্গটিও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ডেমোক্রাট প্রার্থীর তুরুপের তাস হয় উঠবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ বর্ণবিরোধী আন্দোলন প্রসঙ্গে নেতিবাচক মানসিকতা প্রদর্শন ও কটূক্তির জেরে এরইমধ্যে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার মুখে পড়েছেন ট্রাম্প।

নির্বাচনী প্রচারণায় প্রতিপক্ষ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার, হয়রানিমূলক ষড়যন্ত্রের অপচেষ্টা এবং নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের মতো বিষয় নিয়েও প্রশ্নের মুখে পড়তে পারেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।সর্বশেষ নির্বাচনে বিদেশি অর্থায়ন গ্রহণ, রাশিয়ার সঙ্গে গোপন যোগসূত্রতায় নির্বাচন প্রভাবিত করা , বিধি বহির্ভূত নির্বাচনী ব্যয়সহ নারী ও অর্থ কেলেঙ্কারির সঙ্গে সম্পৃক্ততার বহু অভিযোগ রয়েছে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে।  

রয়টার্স বলছে, আলোচিত এই প্রসঙ্গগুলো বেসামাল করে তুলতে পারে ট্রাম্পের যুক্তিখণ্ডনের প্ল্যাটফর্ম। তবে সঠিক পথে সেগুলো মোকাবেলার তরিকা আয়ত্ত করে নিয়ে বাইডেনের বিরুদ্ধে তোপ দাগার জন্য ট্রাম্পও যে মাঠ গুছিয়েই নামতে যাচ্ছেন, তা বলাই যায়। যার প্রেক্ষিতে আগামীকালের  মঞ্চে যুক্তিতর্কের জমজমাট লড়াইটা ট্রাম্প-বাইডেন দ্বৈরথের উত্তাপ ছড়াবে তা বলা বাহুল্য।

এসকে/এসইউ