• ঢাকা
  • সোমবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৭, ২০২১, ০৩:২৯ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৭, ২০২১, ১১:২২ এএম

ওয়াশিংটনে কারফিউ

জাগরণ ডেস্ক
ওয়াশিংটনে কারফিউ

যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট ভবনে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলায় একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গোটা শহরে কারফিউ জারি করেছেন ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল ই বৌজার। বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ানসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সব রাজ্যের ইলেক্টোরাল ভোট গণনার শেষে বুধবার ক্যাপিটল হিলে আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার অনুষ্ঠান চলছিল। এ সময় ট্রাম্প সমর্থকরা বাইরে থেকে ভবনটি ঘিরে ফেলেন। পুলিশের বাধা অতিক্রম করে ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করলে গোলাগুলিতে একজন আহত হন। পরে নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে ভেতরে থাকা সিনেটরদের পুলিশের কড়া পাহারায় বাইরে বের করে আনা হয়।

এ ঘটনার পর এক ভিডিও বার্তায় একে ‘যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রের ওপর আক্রমণ’ আখ্যা দিয়ে তীব্র নিন্দা জানান নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রয়োজনে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের অনুরোধ করেন তিনি।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসের সামনে র‍্যালিতে সমর্থকদের উদ্দেশে ট্রাম্প ঘোষণা দেন, ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হার তিনি কখনোই স্বীকার করবেন না। বুধবার টুইট করেও সমর্থকদের পাশের থাকার আহ্বান জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর স্থানীয় সময় বুধবার সকাল থেকেই নির্বাচনের ফল বাতিলের দাবিতে ওয়াশিংটনের বিভিন্ন পয়েন্টে জমায়েত হতে শুরু করে উগ্রবাদী ‘প্রো-ট্রাম্প সাপোর্টার’ দল। ‘সেইভ আমেরিকা র‍্যালি’ নামে সমাবেশের ডাক দেয় বিভিন্ন ট্রাম্প সমর্থকগোষ্ঠী। ক্যাপিটল হিল প্রাঙ্গণে ভাঙচুরের পর কয়েক দফায় পার্লামেন্টের ভেতরে ঢোকার চেষ্টা চালায় তারা।

ঘটনার ভয়াবহতায় তৎক্ষণাৎ ফল ঘোষণার অনুষ্ঠান বাতিল করেন সিনেটর জেমস ল্যাঙ্কফোর্ড। হামলার আশঙ্কায় পার্লামেন্টের সব ভবনের দরজা-জানালা বন্ধ রাখা হয়। ঘটনার পর টুইট করে সমর্থকদের শান্ত থাকতে অনুরোধ করেন ট্রাম্প।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত কারফিউ জারি থাকবে ওয়াশিংটনে। এ সময় শহরের বাইরে বের হতে পারবে না কেউ। বহিরাগতদের প্রবেশ বন্ধেও পুলিশ মোতায়েন হয়েছে শহরজুড়ে।