• ঢাকা
  • সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৭, ২০২১, ১১:৫০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৮, ২০২১, ০৫:১০ পিএম

ট্রাম্পকে গ্রেপ্তারে একজোট ইরাক-ইরান

জাগরণ ডেস্ক
ট্রাম্পকে গ্রেপ্তারে একজোট ইরাক-ইরান

ইরানের পর এবার ট্রাম্পকে গ্রেপ্তারের উদ্যোগ নিয়েছে মধ্যপ্রাচের আরেক পরাশক্তি ইরাক। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে গ্রেপ্তারের পরোয়ানা জারি করেছে দেশটির একটি আদালত। ২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি বাগদাদে ইরাকের এক শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা আবু মাহদিকে হত্যার নির্দেশ দেয়ার অভিযোগে করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। এ হামলায় নিহতদের মধ্যে ইরানের সামরিক কর্মকর্তা জেনারেল কাশেম সোলাইমানিও ছিলেন। তাদের এই দলটি ইরাকে আইএস বিরোধী অভিযানের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিল।

এদিকে হাশেদ আল শাবি প্যারামিলিটারি গ্রুপের ডেপুটি হেড আবু মাহদি আল মুহান্দিসকে হত্যায় সরাসরি জড়িত ছিলেন ট্রাম্প – এমন অভিযোগ ইরাকের। জাতিসংঘের সনদ অনুযায়ী এই ড্রোন হামলাকে বিচার বহির্ভূত ও বেআইনি কর্মকাণ্ড বলা হচ্ছে। সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট আই ও দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ইরাকের দণ্ডবিধি ৪০৬ ধারা অনুযায়ী ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। এই ধারায় পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শাস্তির বিধান মৃত্যুদণ্ড। হামলার পরিকল্পনাকারীসহ জড়িত প্রত্যেককে তদন্তের মুখোমুখি করার দাবি জানিয়েছে ইরাক। মঙ্গলবার একই হামলায় অভিযোগে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের কাছে ইরানও ট্রাম্পকে গ্রেপ্তার করে বিচারের মুখোমুখি করার সুপারিশ করে। 

বাগদাদে ৩ জানুয়ারির সেই ড্রোন হামলায় ইরানের রেভুল্যুশনারি গার্ডের শীর্ষ কর্মকর্তা ও সামরিক অভিযানের নেতা জেনারেল কাশেম সোলাইমানিও নিহত হয়। ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির পর তাকেই সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তি গণ্য করা হতো। তাই এ হত্যাকাণ্ডের নির্দেশদাতা ও হামলায় সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনার হুঁশিয়ারি দেয় ইরান। 

প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বের মেয়াদ ২০ জানুয়ারি শেষ হওয়ার পর ট্রাম্প আর রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারবেন না। তাই তাঁকে জবাবদিহি করার এটিই মোক্ষম সময় বলে মনে করছে ইরাক ও ইরান।