• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৬, ২০২১, ০৯:৩০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২৬, ২০২১, ০৯:৩২ পিএম

দিল্লিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি

আন্দোলন ঠেকাতে নামছে আধাসামরিক বাহিনী

আন্দোলন ঠেকাতে নামছে আধাসামরিক বাহিনী

চলমান কৃষক আন্দোলন দমনে আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। দিল্লীর নিরাপত্তায় ভারতীয় প্যারামিলিটারি ফোর্সের ১৫টি প্লাটুন মাঠে নামছে বুধবার। দেশটিতে মঙ্গলবার পুলিশের সঙ্গে বিক্ষভকারীদের ব্যাপক সংঘর্ষের পর আন্দোলন দমনে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে ভারত।

এদিকে লাল কেল্লা থেকে বিক্ষভকারীদের সরিয়ে দিল্লীর বিভিন্ন অংশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে পুলিশ। সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ পুলিশের সঙ্গে কৃষকদের সংঘর্ষের ঘটনায় জরুরি নিরাপত্তা বৈঠক ডাকেন। বৈঠকে দিল্লী, হরিয়ানা ও উত্তর প্রদেশের কিছু অংশের ইন্টারনেট সংযোগ আপাতত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একইসঙ্গে দিল্লীর পাশাপাশি পাঞ্জাব ও হরিয়ানাকেও সর্বোচ্চ নিরাপত্তা সতর্কতার আওতায় আনা হয়।

মঙ্গলবার ভারতের ৭২তম প্রজাতন্ত্র দিবসে বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে ট্রাক্টর নিয়ে দিল্লী অবরোধ করে কৃষকরা। ব্যারিকেড ভেঙ্গে লাল কেল্লা অভিমুখে র‍্যালি করতে গেলে কৃষকদের সঙ্গে পুলিশের কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। এসময় এক কৃষক মারা যান বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। নিহত নবনিত সিং (৩০) উত্তরখণ্ডের বাসিন্দা। বিক্ষভকারীদের দাবি পুলিশের হামলাতেই নিহত হন এই কৃষক। যদিও পুলিশের দাবি ট্রাক্টর নিয়ে দিল্লীতে প্রবেশের মুখে গতি হারিয়ে দুর্ঘটনায় পড়েন তিনি।

গত বছর সেপ্টেম্বরে ভারতের বিজেপি সরকার চাষাবাদ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে আগের কৃষি আইন সংস্কার করে নতুন নীতিমালা নির্ধারণ করেন। তবে প্রস্তাবিত কৃষি আইনে কৃষকরা স্বাধীনভাবে চাষাবাদ করতে পারবে না, এমন আশঙ্কা থেকেই ডাকা হয় ‘ভারত বনধ’। আইন বাতিলের দাবি নিয়ে কয়েক মাস ধরেই দিল্লি অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন এই কৃষকরা।

বিকেলে পুলিশের বাধা অতিক্রম করে লালকেল্লায় জড়ো হতে থাকেন কৃষকরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা যায় এ সময় কৃষকরা জাতীয় পতাকা নিয়ে ঐতিহাসিক ভবনটির ওপরে উঠে যান এবং সেখান থেকে স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় পুলিশ সদস্যরা তাদের বাধা দিতে গেলে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকেন তারা।

আরও পড়ুন