• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭
প্রকাশিত: মার্চ ৩, ২০২১, ০৯:২৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ৩, ২০২১, ১০:০৫ পিএম

ধর্ষককে বিয়ের প্রস্তাব, বিচারপতির পদত্যাগ দাবি

ধর্ষককে বিয়ের প্রস্তাব, বিচারপতির পদত্যাগ দাবি

ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার রায়ে ধর্ষক শিক্ষককে নির্যাতিতা ছাত্রীকে বিয়ের পরামর্শ দিয়ে বিপাকে পড়েছেন ভারতের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে। তাঁর পদত্যাগ দাবি করে এক পিটিশনে স্বাক্ষর করেছেন দেশটির পাঁচ হাজারের বেশি নাগরিক।

সম্প্রতি এক মামলায় অভিযুক্ত বিবাহিত শিক্ষককে সাজা এড়াতে অভিযোগকারী নাবালিকা শিক্ষার্থীকে দ্বিতীয় বিয়ে করতে পরামর্শ দেন বোবদে। অন্যথায় তাঁকে কারাদণ্ডের রায় দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেন তিনি। 

এই ঘটনায় এক খোলা চিঠিতে এই বিচারকের পদত্যাগের দাবি করেছেন নারী অধিকার বিষয়ক মানবাধিকার কর্মীরা। তাদের পিটিশনে বুধবার পর্যন্ত স্বাক্ষর করেছেন ৫২০০ মানুষ। 

আন্দোলনকারীদের দাবি, চার বছর আগে এই স্কুলছাত্রীকে উত্যক্ত করার পাশাপাশি তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে কয়েকবার ধর্ষণের করেন এই স্কুল শিক্ষক। এমনকি ধর্ষণের কথা কাউকে জানালে ছাত্রীকে আগুণ দিয়ে পুড়িয়ে মারার হুমকি দেন তিনি। পাশাপাশি ছাত্রীর ভাইকেও হত্যা করার ভয় দেখান এই শিক্ষক।

তবে মামলার শুনানিতে ভারতের প্রধান বিচারপতি নির্যাতিতা স্কুলছাত্রীকে বিয়ের পরামর্শ দিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে বলেন, “আপনি এই ছাত্রীকে বিয়ে করলে আমরা আপনার সাজা বিবেচনা করতে পারি। আর নইলে চাকরিও হারাবেন এবং জেলেও যেতে হবে।”

ধর্ষকের বিচারের পরিবর্তে সাজা কমানোর প্রস্তাব দেয়ায় তাই প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

পদত্যাগের এই দাবির বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি অরবিন্দ বোবদে। এপ্রিলে অবসরে যাওয়ার কথা থাকলেও কয়েকদিন আগেই এক ধর্ষণ মামলায় ‘কারো মধ্যে স্বামী-স্ত্রীর মতো সম্পর্ক থাকলে ধর্ষণ হয় না’ এমন রায় দেয়ায় বিতর্কের মুখে পড়েছেন তিনি। বোবদের আগে ভারতের সাবেক বিচারপতি রঞ্জন গগৈও যৌন হয়রানির অভিযোগে পদতাগের দাবির মুখে পড়েছিলেন।