• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ১০, ২০২১, ০২:১৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১০, ২০২১, ০২:২০ পিএম

মিয়ানমার অভ্যুত্থান

প্যাগোডা ও খেলার মাঠে লাশের স্তূপ

প্যাগোডা ও খেলার মাঠে লাশের স্তূপ

মিয়ানমারের মধ্যাঞ্চলীয় শহর বাগোতে ৬০ জনেরও বেশি মানুষকে হত্যা করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, প্রাচীন এই শহরটির প্যাগোডা ও স্কুলের খেলার মাঠে মরদেহ স্তূপ করে রেখেছে জান্তা সরকারের বাহিনী।

সংবাদমাধ্যম রেডিও ফ্রি এশিয়ার (আরএফএ) এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, শুক্রবার অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভকারীদের গড়ে তোলা ব্যারিকেড অপসারণ করতে গিয়ে দেশটির বাগো শহরে গুলিবৃষ্টি চালিয়েছে পুলিশ ও সেনাবাহিনী।

গত ১ ফেব্রুয়ারির সেনা অভ্যুত্থানের বিরোধিতা করতে বাগো শহরের রাস্তায় ব্যারিকেড গড়ে তোলা হয়। প্রায় আড়াই লাখ মানুষের শহরটিতে শুক্রবার সন্ধ্যা নামার আগেই অভিযান শুরু করে নিরাপত্তা বাহিনী।

স্থানীয় এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, “আমাদের মানুষেরা বুঝতে পেরেছিল তারা (নিরাপত্তা বাহিনী) আসতে পারে। আর এজন্য রাতভর অপেক্ষা ছিল। সেনা সদস্যরা ভারী অস্ত্র ব্যবহার করেছে। আমরা মর্টার শেলও পেয়েছি। মেশিনগান দিয়েও প্রচুর গুলি করা হয়েছে। তাজা গুলি ছাড়াও সেনা সদস্যরা গ্রেনেড লাঞ্চারও ব্যবহার করেছে।”

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, শনিবার সকাল আটটা পর্যন্ত মাত্র তিনটি মরদেহ উদ্ধার করতে পেরেছেন তারা। এছাড়া জিয়ামুনি প্যাগোডা এবং কাছের একটি স্কুলে স্তূপ করে রাখা মরদেহ সরিয়ে নিয়েছে সেনাবাহিনী।

অভ্যুত্থানের পর থেকে এখন পর্যন্ত মিয়ানমারে অন্তত ৬৫০ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। এছাড়া প্রায় তিন হাজার মানুষকে আটক করা হয়েছে।