• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ মে, ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২১, ০৩:৩৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৫, ২০২১, ০৬:১০ পিএম

ভারতে রেকর্ড শনাক্ত, শ্মশানে দীর্ঘ অপেক্ষা

ভারতে রেকর্ড শনাক্ত, শ্মশানে দীর্ঘ অপেক্ষা

ভারতে একদিনে রেকর্ড দুই লাখেরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বেড়েছে মৃত্যুও। প্রায় হাজার খানেক মানুষের নাম জুড়েছে মৃত্যুর মিছিলে।

স্থানীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়,  ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে দুই লাখ ৭৩৯ জন। মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৩৮ জনের। মরদেহ সৎকারে হিমশিম খাচ্ছে শ্মশান ও গোরস্থান কর্তৃপক্ষ।

যমুনা নদীর তীরে দিল্লির বৃহৎ নিগামবোধ শ্মশাঘাটের এক কর্মচারী জানিয়েছেন, আগে দিনে এক থেকে দুইজনকে দাহ করা হতো। সেখানে এখন ১৫টিরও বেশি মরদেহ দাহ করতে হচ্ছে প্রতিদিন।

এদিকে মহামারি নিয়ন্ত্রণে ভারতের মহারাষ্ট্রে পূর্ণাঙ্গ লকডাউন ঘোষণা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন রাজ্যে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। সাধারণ মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি জরুরি সেবা ছাড়া সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি ও লকডাউন মানাতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত রয়েছেন। তবে ট্রেন ও উড়োজাহাজ পরিষেবা চালু রয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে অভিবাসী শ্রমিকেরা মুম্বাই ছেড়ে যাওয়ার কারণে ট্রেন স্টেশনে উপচেপড়া ভিড় ছিল। এছাড়াও কুম্ভমেলায় শুচিস্নানে লাখ লাখ মানুষের ভিড়েও করোনা সংক্রমণ বেড়ে যায়।

দিল্লির হাসপাতালগুলোতে দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট। নয়াদিল্লিতে এক ডজনেরও বেশি হোটেল এবং বিয়ের হলগুলোকে কোভিড-১৯ হাসপাতালে রূপান্তর করার আদেশ দেওয়া হয়েছে।

দিল্লির সরকারি স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এস কে সারিন বলেছেন, ‘সংক্রমণের এই হার উদ্বেগজনক।’

মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট এবং আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যের হাসপাতালে রোগীদের ভিড় বেড়েছে। হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেন সিলিন্ডারের ঘাটতি রয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে ভারতে টিকা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, ১৪ এপ্রিল বুধবার ৩০ লাখের বেশি ডোজ দেওয়া হয়েছে। এই নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ১১৪ মিলিয়ন টিকা প্রদান করা হয়েছে।

গত বছর সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক লাখ ৭৩ হাজার ১২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।