• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০২১, ১০:১১ এএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২, ২০২১, ০৪:১১ এএম

বিয়ের খাবার না পেয়ে যে কাণ্ড ঘটালেন ফটোগ্রাফার

বিয়ের খাবার না পেয়ে যে কাণ্ড ঘটালেন ফটোগ্রাফার
প্রতীকী ছবি

সারাদিন বিয়ের ছবি তুলে ক্যামেরার মেমোরি ভরে ফেললেও পেট থেকে গিয়েছিল ফাঁকা। ক্ষুধা পেটে খাবার চাইতে গেলে বিয়ে বাড়ি থেকে জানানো হয়, পেশাদারিত্ব এবং খাবারের মধ্যে যে কোনও একটি বেছে নিতে আর এতেই ক্ষেপে গিয়ে বরের সামনেই বিয়ের সমস্ত ছবি ডিলিট করে দিয়েছেন একজন ফটোগ্রাফার।

বিয়ে বাড়ির এমন তিক্ত অভিজ্ঞতা সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন মার্কিন ওই আলোকচিত্রি।

সোশাল মিডিয়ায় দেয়া পোস্টে ওই ফটোগ্রাফার উল্লেখ করেন, ‘আমি মোটেই পেশাদার ফটোগ্রাফার নই। শখের বশে কুকুর বা পোষা প্রাণীর ছবি তুলি। এই প্রথম কোনও বিয়ের ছবি তোলার প্রস্তাব পাই। তবে আয়োজকদের আমি প্রথমেই জানিয়েছিলাম, আমি মোটেই পেশাদার ফটোগ্রাফার নই। তবু আমাকে ২৫০ ডলার (২১ হাজার ৪১০ টাকা) অফার করা হয়, আমি রাজিও হই।’

তিনি জানান, বেলা ১১টা থেকেই কাজ করছিলাম। ব্যাপক গরম থাকলেও সেখানে কোনও এসি ছিল না। ফলে ক্ষুধা ও তৃষ্ণায় কষ্ট হচ্ছিল। বিকাল ৫টায় দেখলাম সবার জন্য খাবারের ব্যবস্থা হলেও আমার জন্য কোনও বরাদ্দ নেই। এ জন্য আয়োজকদের কাছে ২০ মিনিট ছুটি নিতে গেলে আমাকে বলা হয়, ‘আপনি খাবার খেয়ে সময় নষ্ট করতে চান নাকি পেশাদারিত্বের সাথে ছবি তুলে সম্মানি নিয়ে চলে যেতে চান?’

ফটোগ্রাফার বলেন, ‘ওই সময় মারাত্মক রাগ হয়। ওই মুহূর্তেই বরের সামনে বিয়ের সমস্ত ছবি ডিলিট করে দিয়ে চলে আসি। তবে এখন কাজটা ঠিক হলো কি না এ নিয়ে দ্বিধায় আছেন ওই ফটোগ্রাফার। বলেন, নব দম্পতিকে এখন অনেকেই বিয়ের ছবির কথা জিজ্ঞেস করছে। তারা তাদের বিয়ের একটি ছবিও শেয়ার দিতে পারেনি। এ নিয়ে এখন নিজেকে অপরাধী মনে হচ্ছে।’ টাইমস নাও।

জাগরণ/এমএ