• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩, ২০২১, ১১:২৮ এএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ৩, ২০২১, ১১:২৯ এএম

গণনার শুরু থেকেই এগিয়ে মমতা, ব্যবধানে নজর তৃণমূলের

গণনার শুরু থেকেই এগিয়ে মমতা, ব্যবধানে নজর তৃণমূলের
সংগৃহীত ছবি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী থাকতে হলে মমতা ব্যানার্জি জিততেই হবে। ভবানীপুরের উপনির্বাচনে মমতা ব্যানার্জির জয় নিয়ে অবশ্য কোনও সংশয় নেই তৃণমূল শিবিরের। 

তবে, তৃণমূলের চিন্তা শুধু ব্যবধানের অঙ্কটা নিয়ে। উপনির্বাচনী প্রচারপর্বেও মমতা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়— সবার বক্তব্যেই ফিরে ফিরে এসেছে এই ব্যবধানের প্রসঙ্গ। 

উপনির্বাচনে কম মানুষ ভোট দিতে আসে, এটা জেনেই তৃণমূল এবার জোর দিয়েছিল ‘ভোট দিতে আসুন’ ডাকে। গত বৃহস্পতিবার ভোটদানের ভালো হার সে দিক থেকে খানিকটা আশ্বস্ত করেছে মমতার দলকে।

পোস্টাল ব্যালট গণনা শুরু হতেই এগিয়ে গেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা।

ইভিএম গণনার তৃতীয় রাউন্ড শেষে ৬ হাজার ১৪৬ ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে মমতা।

এই রাউন্ডে তিনি পেয়েছেন ৯ হাজার ৯৭৪টি ভোট। বিজেপি প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা পেয়েছেন ৩ হাজার ৮২৮ এবং সিপিএম প্রার্থী শ্রীজীব পেয়েছেন ২৫০টি ভোট।

গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরেও মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিয়মানুযায়ী সেই চেয়ার বাঁচাতে তাকে ৬ মাসের মধ্যে আবারও কোনও একটা বিধানসভা আসন থেকে জয়ী হয়ে আসতেই হবে।

দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রটি মূলত তার ঘাঁটি হিসেবেই পরিচিত। তবে বিগত বিধানসভা নির্বাচনে ‘জেদের বশে’ শুভেন্দুর সঙ্গে লড়তে গিয়ে হেরে যান নন্দীগ্রামে। এই ভবানীপুর আসনে জয়লাভ করেন বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।

মমতার কথা বিবেচনা করে পরে পদত্যাগ করেন তিনি। সেই শূন্য আসনেই এখন লড়ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপির যুবনেত্রী ও আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল

গত ৩০ সেপ্টেম্বর ভবানীপুর সহ এই তিনটি আসনে ভোট গ্রহণ করা হয়। আনন্দবাজার।

জাগরণ/এমএ

আরও পড়ুন