• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: নভেম্বর ১১, ২০২১, ০১:১৩ এএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ১০, ২০২১, ০৭:১৩ পিএম

২০৪০ সালের মধ্যে বন্ধ হবে তেলে চলা গাড়ির উৎপাদন

২০৪০ সালের মধ্যে বন্ধ হবে তেলে চলা গাড়ির উৎপাদন
প্রতীকী ছবি

কার্বন নিঃসরণ কমানোর মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ন্ত্রণে আনতে আগামী ২০৪০ সালের মধ্যে জ্বালানি তেলে চলা গাড়ির উৎপাদন বন্ধে অঙ্গীকার করেছে পৃথিবীর বেশ কিছু দেশ, কোম্পানি এবং শহর। 

বুধবার (১০ নভেম্বর) গ্লাসগোতে ‘দ্যা গ্লাসগো ডিক্লারেশন অন জিরো অ্যামিশন কারস এন্ড ভ্যানস’ স্বাক্ষর করে ভারত, ফোর্ড মোটরস এবং জেনারেল মোটরস সহ বিশ্বের বেশ কিছু প্রধান করপোরেট প্রতিষ্ঠান। তবে, এতে স্বাক্ষর করেনি চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানি সহ পৃথিবীর দুই বৃহত্তম গাড়ি নির্মাতা টয়োটা এবং ফক্সওয়াগন।

বৃহৎ দেশ এবং উৎপাদকদের এই চুক্তিতে সই না করা গভীর উদ্বেগজনক বলে মন্তব্য করেছেন গ্রিনপিস জার্মানির নির্বাহী পরিচালক মার্টিন কাইজার।

তিনি বলেন, জীবাশ্ম জ্বালানির ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে বৈদ্যুতিক গাড়ি এবং দূষণমুক্ত গণপরিবহন ব্যবস্থার ব্যবহার বাড়ানো জরুরি। 

তবে, প্রচলিত ইঞ্জিনে নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার করলে জলবায়ু সমস্যার সমাধান হবে কিনা সে বিষয়ে সন্দিহান জার্মানি। জার্মানির একজন পরিবেশ বিষয়ক মুখপাত্র জানিয়েছেন, চুক্তির ‘ছোট একটি বিষয়ে’ ঐক্যমতে পৌঁছাতে না পারায় তারা চুক্তিতে সই করেনি। 

ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সির তথ্য অনুযায়ী, বৈশ্বিক কার্বন নিঃসরণের এক-চতুর্থাংশই আসে ব্যক্তিগত গাড়ি, বাস, ট্রাক, জাহাজ এবং থেকে। 

চুক্তিতে সই করা অন্যদের মধ্যে আছে নিউজিল্যান্ড, পোল্যান্ড, ব্রিটেন, ব্রাজিলের সাও পাওলো, দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল এবং ভলভো, মার্সিডিজ-বেনজ, উবার ও ভারতের টাটা মোটর। 

জাগরণ/এসএসকে