• ঢাকা
  • রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২, ১২:৩৯ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২, ০৬:৩৯ পিএম

ইউক্রেনের ৪ অঞ্চলে রাশিয়ার গণভোট

ইউক্রেনের ৪ অঞ্চলে রাশিয়ার গণভোট
সংগৃহীত ছবি

রাশিয়ার দখল করা ইউক্রেনের চার অঞ্চলে শুরু হয়েছে গণভোট।

দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন ও জাপোরঝিয়ায় গণভোট চলবে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। গণভোটকে প্রহসন হিসেবে উল্লেখ করে পশ্চিমারা বলছে, রাশিয়ার এই পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক আইনের চরম লঙ্ঘন।

দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন ও জাপোরঝিয়া- এই চার বিস্তীর্ণ অঞ্চল ইউক্রেনের মূল ভূখণ্ডের ১৫ শতাংশ। ২০১৪ সালে ক্রিমিয়া দখল করে একইভাবে গণভোটের আয়োজন করে ক্রেমলিন। ক্রিমিয়ার মতো এই চার অঞ্চলের ভোটের ফল রাশিয়ার পক্ষে যাবার সম্ভাবনাই বেশি।

রাশিয়ার এই পদক্ষেপকে আন্তর্জাতিক আইনের চরম লঙ্ঘন বলে কড়া সমালোচনা করেছে পশ্চিমা বিশ্ব। গণভোট হলে আলোচনার সব পথ বন্ধ হয়ে যাবে বলে সতর্ক করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। রুশ নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে গণভোটের পদক্ষেপের সমালোচনা করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিবও।

রুশ ভূখণ্ডের অন্তর্ভুক্ত হলে এই চার অঞ্চলে যে কোন হামলাকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আক্রমণ হিসেবে দেখবে মস্কো। এদিকে, ইউক্রেনের কাছ থেকে নেয়া নতুন অঞ্চলগুলো রক্ষায় প্রয়োজনে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করবে রাশিয়া।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) এমনটাই মন্তব্য করেছেন সাবেক রুশ প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ।

নিজেদের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় শুধু সেনা সমাবেশ নয়, পারমাণবিক অস্ত্রসহ যে কোন প্রযুক্তির অস্ত্র ব্যবহার করতে মস্কো প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন তিনি।

নতুন সেনা সমাবেশের ঘোষণার পরপরই তা বাস্তবায়ন শুরু করেছে রাশিয়া। চলছে খসড়া তৈরির কাজ। এদিকে মস্কোর সেনা সমাবেশের ঘোষণার পর রুশ নাগরিকেরা দেশ ছাড়ছে বলে তথ্য দিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। প্রতিবেদন বলছে, দেশ ছেড়ে যাওয়াদের বেশিরভাগই তরুণ।

জাগরণ/আন্তর্জাতিক/এসএসকে