• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ জুন, ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২৩, ১২:১০ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৫, ২০২৩, ১২:১০ এএম

ইউক্রেনের ঘুম হারাম

ইউক্রেনের ঘুম হারাম
ছবি ● সংগৃহীত

ইউক্রেনের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার বিরুদ্ধে ভয়াবহ হুমকি তৈরি করেছে রুশ এফএবি-ফাইভ হান্ড্রেড বায়ুবোমার নতুন সংস্করণ।

এ তথ্য জানিয়েছে ইউক্রেনের বিমান বাহিনী । 

পশ্চিমা ট্যাংক মোকাবেলায় ‘হান্টার গ্রুপ’ গঠন করেছে মস্কো। ক্রেমলিন জানায়, ইউক্রেনকে দেয়া অন্য সরঞ্জামের মতো ট্যাংকেরও একই পরিণতি হবে।

ভূমি পুনরুদ্ধারে রাশিয়ার বিরুদ্ধে পাল্টা আক্রমণ জোরদারের ঘোষণার মধ্যেই ইউক্রেনের মনে ভীতি ছড়াচ্ছে রুশ এফএবি-ফাইভ হানড্রেড বায়ুবোমার নতুন সংস্করণ।

ক্রুজ মিসাইলের মাধ্যমে ফ্রন্টলাইনে এ বোমা নিক্ষেপ করছে মস্কো। ইউক্রেনের বিমান বাহিনীর মুখপাত্র ইউরি ইহনাত জানান, এসব বোমার উৎপাদন বাড়িয়েছে রাশিয়া। 

যুক্ত করা হচ্ছে পাখা, জিপিএস নেভিগেশনের মতো প্রযুক্তি। সম্প্রতি এ ধরনের বোমা তৈরির একটি কারখানা পরিদর্শন করেছেন রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সার্গেই শুইগো। 

কিয়েভ জানায়, রাশিয়ার পরিকল্পনা, ইউক্রেনের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার মধ্যে না ঢুকে ফ্রন্টলাইন এবং আশপাশের অঞ্চলে হামলা চালানো।  ইউক্রেনের বিমান বাহিনীর কমান্ডার মাইকোলা ওলেশচুক জানান, এফ-সিক্সটিন যুদ্ধবিমান এ ধরনের বোমার কার্যক্রম মোকাবেলায় ইউক্রেনের সক্ষমতাকে বাড়াবে। 

যদিও ইউক্রেনকে এ বিমান দিতে অস্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র। অত্যাধুনিক ফাইটার জেট এই মুহূর্তে ইউক্রেনের বিমানবাহিনীর জন্য উপযুক্ত মনে করছে না পেন্টাগন। 

১০ এপ্রিল রুশ মিলিটারি ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক ইভজেনি আরিফুলিন জানান, ইউক্রেনকে দেয়া পশ্চিমাদের ট্যাংক ধ্বংসে ‘ট্যাংক কিলার ইউনিট’ গঠন করছে রাশিয়া।

রুশ উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইউনুস-বেক ইয়েভকুরভ এ নির্দেশ দিয়েছেন। তৈরি করা নির্দেশিকা অনুযায়ী প্রশিক্ষণ বাস্তবায়ন হচ্ছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছিলেন, তার ধারণা মার্চের মধ্যে ৪০০ ট্যাংক পেতে পারে ইউক্রেন। গত মাসে জার্মান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ১৮টি লেপার্ড ট্যাংক পাঠিয়েছে তারা।

আরিফুলিন জানান, ট্যাংক হান্টার গ্রুপে আর্টিলারি ফায়ারিং এবং মিসাইল সিস্টেম অপারেশনের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। এক সঙ্গে ৭০০ সৈন্যকে ওই গ্রুপে প্রশিক্ষণের সক্ষমতা রয়েছে।

এরই মধ্যে জার্মান লেপার্ড, ব্রিটিশ চ্যালেঞ্জার্স, মার্কিন আব্রামস, ফরাসি লেকরাসহ পশ্চিমা ট্যাংক সম্পর্কে ব্যাপক গবেষণা করা হয়েছে।

ট্যাংক হান্টার গ্রুপের সদস্যদের ইউক্রেনসহ বিভিন্ন যুদ্ধে অংশ নেয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে। মস্কো পশ্চিমাদের সতর্ক করছে, ইউক্রেনকে অস্ত্র দেয়ার অর্থ সংঘাতে সরাসরি অংশগ্রহণ।

রুশ প্রেসিডেন্টের দপ্তর জানায়, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর অন্য সরঞ্জামের মতো পরিণতি হবে পশ্চিমা ট্যাংকেরও। যুদ্ধের ফলাফলে আনতে পারবে না কোনো পরিবর্তন।

জাগরণ/আন্তর্জাতিক/রাশিয়া্‌ইউক্রেন/এসএসকে