• ঢাকা
  • শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪, ১২:০৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪, ১২:০৬ এএম

পিটিআই সাড়া দিচ্ছে না: বিলাওয়াল

পিটিআই সাড়া দিচ্ছে না: বিলাওয়াল
ছবি ● সংগৃহীত

জোট সরকার গঠনে রাজি হয়েছে পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ও পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)।

পিএমএল-এন দলের প্রধান দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এই দাবি করলেও এবার পিপিপির প্রধান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি বলছেন, কারও সঙ্গে আনুষ্ঠানিক কোনো আলাপ হয়নি।

প্রকাশিত ২৫৭ আসনের মধ্যে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সমর্থক স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছেন ৯৩টি আসনে। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী পিএমএল–এন জিতেছে ৭৩টিতে।

৫৪টি আসন পাওয়া পিপিপির সঙ্গে তারা জোটে রাজি হয়েছে বলে জানায়। আরও ৭টি আসনের ফল বাকি। দুটিতে বাতিল ঘোষণা করেছে ইসিপি।

কিন্তু বিলাওয়াল ভুট্টো জিও নিউজকে বলেন, পিএমএল–এন ও পিটিআই— কোনো দলের সঙ্গেই তাদের আনুষ্ঠানিক আলাপ হয়নি।

পিটিআইয়ের জয়ী নেতাদের সঙ্গে তারা যোগাযোগের চেষ্টা করেও সাড়া পাননি। বাবা আসিফ জারদারিরও কারও সঙ্গে আলাপ হয়নি বলে জানান তিনি। তবে এককভাবে সরকার গঠন করতে না পারার বিষয়টি মেনে নিয়েছেন বলে জানান বিলাওয়াল।

তিনি বলেন, সব আসনের ফল পাওয়ার পর জোট গঠনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। 

এখনো সব আসনের ফল জানায়নি পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচন কমিশন ইসিপি। এককভাবে সরকার গঠন করতে কোনো দলকে জিততে হবে ১৩৪টি আসনে।

কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কোনো দলই এই শর্ত পূরণ করতে পারেনি। 

সব আসনের ফল প্রকাশের পর তাই বেশ কয়েকটি চিত্র সামনে আসছে। এককভাবে কোনো দলের সরকার গঠনের আর সুযোগ নেই। 

পাকিস্তানি বিশ্লেষক জাইঘাম খান আল–জাজিরাকে বলেন, সব আসনের ফল প্রাথমিকভাবে প্রকাশের পর দুটি চিত্র সামনে আসতে পারে।

এর মধ্যে একটি হচ্ছে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী কারাবন্দী ইমরান খানের দলের জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বাদ দিয়ে বাকি দলগুলোর একটি জোট করে সরকার গঠন। 

এভাবে সরকার গঠন করলে বিলাওয়াল ভুট্টোর দল পিপিপি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল–এন ছাড়াও জোটে আসবে এমকিউএম, জামাত–ই–ইসলামী ও বাকিরা। 

জাইঘাম খান বলেন, দ্বিতীয় আরেকটি চিত্র আছে। তবে সেটি হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। এক্ষেত্রে পিপিপিকে পিটিআইয়ের সঙ্গে হাত মেলাতে হবে।

কেননা এ পর্যন্ত ঘোষিত আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আসনে জিতেছে পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।  তবে যেভাবেই সরকার গঠন করা হোক না কেন, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা পাকিস্তানে অচিরেই আসছে না বলে মনে করছেন বিশ্লেষক জাইঘাম খান। 

জাগরণ/আন্তর্জাতিক/এসএসকে