• ঢাকা
  • সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
প্রকাশিত: অক্টোবর ১৩, ২০১৯, ০২:১৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ১৩, ২০১৯, ০৪:৫৯ পিএম

পুনর্গঠনেও বেঞ্চ পাননি সেই তিন বিচারপতি

জাগরণ প্রতিবেদক
পুনর্গঠনেও বেঞ্চ পাননি সেই তিন বিচারপতি
(বাঁ থেকে) বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি একেএম জহিরুল হক ও বিচারপতি কাজী রেজাউল হক

হাইকোর্টের বিচার কাজ পরিচালনার জন্য ৫০টি বেঞ্চ পুনর্গঠন করে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের এই বেঞ্চগুলোর মধ্যে ১৬টি একক বেঞ্চ। অন্যগুলো দুজন করে বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ।

হাইকোর্টের আজ রোববারের (১৩ অক্টোবর) কার্যতালিকায় মোট ৫৩টি বেঞ্চের উল্লেখ আছে। এরমধ্যে ৫০টি বেঞ্চের কোন বেঞ্চে কোন বিচারপতি বা কোন কোন বিচারপতি বিচারকাজ পরিচালনা করবেন তা নির্ধারণ করা আছে। বাকি তিনটিতে কোনো বিচারপতির নাম উল্লেখ নেই। 

এদিকে ‘বিচারকাজ থেকে বিরত থাকবেন’ বলে সিদ্ধান্ত পাওয়া তিন বিচারপতির নাম নেই পুনর্গঠিত এই কার্যতালিকাতেও (কজলিস্ট)।
 
গত ২২ আগস্ট গণমাধ্যমকে জানানো হয়েছিল, হাইকোর্টের ওই তিনজন বিচারপতিকে বিচারকাজ থেকে বিরত থাকতে বলেছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। এই সিদ্ধান্তের কথা বিচারপতিদের জানানো হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ছুটির আবেদন করেছেন ওই তিনজন বিচারপতি। সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ও স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছিলেন।

গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘হাইকোর্টের তিনজন বিচারপতির বিরুদ্ধে প্রাথমিক অনুসন্ধানের প্রেক্ষাপটে মহামান্য রাষ্ট্রপতির সঙ্গে পরামর্শক্রমে তাদের বিচারকার্য থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্তের কথা অবহিত করা হয়। পরবর্তীতে তারা ছুটির প্রার্থনা করেন।

সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ওই তিন বিচারপতি হলেন- বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি একেএম জহিরুল হক ও বিচারপতি কাজী রেজাউল হক। কী কারণে বা কী অভিযোগে তাদের বিচারকাজ থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে, তা জানানো হয়নি।

এর পরিপ্রেক্ষিতে জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা বলেছিলেন, অভিযোগের সত্যতা না পাওয়া গেলে তারা বা তাদের কেউ বা কেউ কেউ পরবর্তীতে পুনর্গঠিত বেঞ্চে ফিরতেও পারেন। তবে অবকাশ শেষে রেওয়াজ অনুযায়ী পুনর্গঠিত বেঞ্চে তাদের কারও নাম নেই।

এমএ / এফসি