• ঢাকা
  • রবিবার, ০১ আগস্ট, ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুলাই ১৮, ২০২১, ০৪:১৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ১৮, ২০২১, ১০:১৬ এএম

‘কনটেম্পট অব কোর্ট’ এবং কিছু কথা

‘কনটেম্পট অব কোর্ট’ এবং কিছু কথা

ব্যারিস্টার খন্দকার মোহাম্মদ মুশফিকুল হুদা

A Judge Cannot Be A Judge of His Own Cause এই ধারণাটির ব্যাতিক্রম হলো Contempt of Court. A Contempt is Complete when a Judge or a Magistrate thinks it is a Contempt. It does not matter the Contempt is taken place in front of the Judge or behind the Judge, the simple rule is that the Contempt is taken Place on the Face of the Court. It is good enough if the Judge or the Magistrate is satisfied that the use of words or the conducts in question is tantamount to contemptuous commissions. 

তবে আমি বিশ্বাস করি আইনজীবীদের প্রকাশ্যে বিচার বিভাগ বিষয়ে কথা বলতে সাবধানতা অবলম্বন প্রয়োজন। আইনজীবীরা বিচার বিভাগকে জন সমক্ষে হেয় প্রতিপন্ন করে নিজেরা সম্মানিত হতে পারে না। 

একই সাথে বেঞ্চ সমূহকেও Judicial Tolerance দেখতে হবে। বিশেষ করে বারের বিষয়ে কিংবা বারের সদস্যদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহনের ক্ষেত্রে। যা প্রায় ক্ষেত্রেই অনুপস্থিত। বেঞ্চ সমূহকে মনে রাখতে হবে বার সমূহের সদস্যদের হেয় প্রতিপন্ন করে সুষ্ঠু বিচারিক পরিবেশ বজায় রাখা যাবে না। 

অর্থাৎ বার ও বেঞ্চ সমূহের মধ্যে যৌক্তিক ও সহাবস্থান মূলক অবস্থানের একটা সংস্কৃতি চর্চা থাকা জরুরি। আর এটা One Way Trafficking System নয় বরং Two Ways Trafficking System.

বার ও বেঞ্চ সমূহের একে অপরের প্রতিপক্ষ নয় বরং একে অপরের পরিপূরক। বার ও বেঞ্চ সমূহের সুসম্পর্ক চূড়ান্ত বিচারে বিচার বিভাগের Ultimate Stakeholders তথা বিচার প্রার্থীদের জন্য একটা সহায়তামূলক বিচারিক পরিবেশ সৃষ্টিতে অবদান রাখে। আর এটাই Principles of Natural Justice এর মূল Demand তথা দাবি।
লেখক : এডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট।

জাগরণ/এসকে