• ঢাকা
  • শনিবার, ০৪ জুলাই, ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০, ০৬:০০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০, ০৬:১১ পিএম

ডায়াবেটিস

ব্যায়াম শুরুর আগে মেনে চলুন কিছু নিয়ম

সবিশেষ
ব্যায়াম শুরুর আগে মেনে চলুন কিছু নিয়ম

 ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখার পূর্বশর্ত হলো সুশৃঙ্খল জীবন যাপন করা। যদি সচেতন থাকেন তবে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা অনেকটাই সহজ। তবে এ কথা সত্য ডায়াবেটিস একবার হলে কখনই ভালো হয় না। কিন্তু সঠিকভাবে রোগটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে একজন ডায়াবেটিস রোগী সারাজীবন অন্যান্য আর ১০ জনের মতোই সুস্থ জীবন যাপন করতে পারেন। ডায়াবেটিস রুগিদের জন্য তেমনই কিছু প্রয়োজনী টিপস তুলে ধরেছেন বেক্সিমকো ফার্মার পুষ্টিবিদ

আছিয়া পারভীন আলী শম্পা

।। নিয়ম করে পর্যাপ্ত পরিমাণে সুষম এবং পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ, সময় মতো ওষুধ সেবন এবং নিয়মিত সপ্তাহে অন্তত ১৫০-২০০ মিনিট ব্যায়াম করা যদি অভ্যাসে পরিণত করা যায় তবে ডায়াবেটিসের বিরুদ্ধে জয়ী হওয়া কোনও ব্যাপারই না।

।। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে ব্যায়ামের কোনও বিকল্প নেই। তবে ব্যায়াম শুরু করার আগে কিছু বিষয়ে পূর্ব ধারণা থাকা ভালো। 

আগে থেকেই জেনে নিন বিষয়গুলো—

• কী ব্যায়াম করবেন
• কতক্ষণ করবেন    
• কতবার করবেন
• কখন করবেন
• কী ধরনের পোশাক ও জুতা পরিধান করবেন।
• ব্যায়াম না করতে পারলে অন্য কী ব্যায়াম করতে পারেন।
• কীভাবে ব্যায়ামের সময় বাড়াবেন।
• কতদূর যাবেন

যেসব বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখা দরকার— 

• যে কোনও ব্যায়াম শুরু করার আগে একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিন।  
• প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময় ব্যায়াম করার চেষ্টা করবেন।
• ব্যায়াম শুরুর আগে পানি পান করে নিন।
• ব্যায়াম শুরুর আগে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা দেখে নিন। রক্তের শর্করা ১০০মি. গ্রামের নিচে থাকলে অল্পকিছু খেয়ে নিন।
• যদি ইনসুলিন নিয়ে থাকেন তবে আগে থেকেই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।ব্যায়াম করার সময় পকেটে অল্প পরিমাণে গ্লুকোজ, চিনি বা মিস্টি ফলের রস রাখবেন। যাতে খারাপ লাগলে সাথে সাথেই খেয়ে নিতে পারেন। 
• অনেক ধরনের ব্যায়াম আছে তবে হাঁটা উৎকৃষ্ট ব্যায়াম।

•  অল্প ব্যায়াম দিয়ে শুরু করে ধীরে ধীরে সময় বাড়াবেন। প্রতিদিন ৫ মিনিট করে বাড়িয়ে সপ্তাহে ১৫০ থেকে ২০০ মিনিট করে ব্যায়াম করার লক্ষ্য থাকবে।
• ব্যায়ামের শুরুতে কিছুক্ষণ অল্প ব্যায়াম করে নেবেন যেটা হল ‘ওয়ার্মআপ’ সঙ্গে কিছু স্ট্রেচিং ব্যায়াম এবং শেষ করার সময়ও হঠাৎ করে থেমে যাবেন না। শেষ ৫ মিনিট আস্তে আস্তে কমিয়ে ব্যায়াম করা থামাবেন যেটা হল ‘কুলডাউন’।
• হাঁটার সময় মাপসই আরামদায়ক জুতা এবং সুতি মোজা ব্যবহার করবেন।
• হাঁটার পর সবসময় পা পরীক্ষা করে দেখবেন। পায়ে ফোসকা, কাটা, ব্যথা বা পা লাল হওয়া দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন।
• ব্যায়াম করার জন্য একজন বন্ধু খুঁজে নেন। একা একা ব্যায়াম করতে খারাপ লাগলেও সঙ্গী থাকলে ব্যায়াম করে আনন্দ পাবেন।
•  হাইপো এবং হাইপার গ্লাইসেমিয়া সম্বন্ধে ধারণা রাখুন । 

সপ্তাহে কয়দিন ও কতক্ষণ ব্যায়াম করা উচিত— 

•  সপ্তাহের অধিকাংশ দিন (কমপক্ষে ৫দিন) এবং দিনে ৩০ মিনিট অ্যারোবিক ব্যায়াম অধিকাংশ ক্ষেত্রে ডায়াবেটিস বা অন্যান্য রোগ নিয়ন্ত্রণে সুফল বয়ে আনে। তবে সবচেয়ে ভালো হয় সপ্তাহে অন্তত ১৫০ মিনিট ব্যায়াম করার টার্গেট অর্জন করতে পারলে।
• এক নাগাড়ে ৩০মিনিট ব্যায়াম না করতে পারলে ১০ মিনিট করে দিনে ৩ বার ব্যায়াম করলেও হবে। প্রতিদিন ৩ বার খাওয়ার আগে ১০মিনিট করে ব্যায়াম একটা সুবিধাজনক ব্যায়াম করে নিন।

কখন ব্যায়াম করা উচিত নয়—

•  খাওয়ার পর রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা ৩০০মি. গ্রা বা খালি পেটে ২৫০মি. গ্রা এর ওপর থাকলে ব্যায়াম করা উচিত নয়।
• খাওয়ার পরপরই ব্যায়াম করবেন না। খাবার খাওয়ার পর অন্তত ২-৩ ঘণ্টা অপেক্ষা করে ব্যায়াম শুরু করা উচিত। তবে প্রতিবার বড় মিল গ্রহণ করার পর বসে না থেকে ১০-১৫ মিনিট হালকা পায়চারী করা সুগার নিয়ন্ত্রণে জন্য খুবই ভাল উপায়।

এসএমএম