• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ, ২০২১, ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৫, ২০২১, ০৪:২৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২৬, ২০২১, ০৯:১৯ এএম

প্রিয়জনের সঙ্গে যা করবেন না

প্রিয়জনের সঙ্গে যা করবেন না

কর্ম ব্যস্ততায় প্রিয়জনের সঙ্গে কতটুকু সময় কাটাতে পারছেন? দামি গিফট, ঘুরে বেড়ানো এসবই তো করছেন। তবুও কোথায় যেন কমতি থেকে যাচ্ছে। বোঝাপড়ার ক্ষেত্রে দিন দিন যেন ফাটল ধরছে। ভেবেও কোন উপায় পাচ্ছেন না, কেননা সময় গড়িয়ে দূরত্ব আরও বেড়েই চলেছে।

এ অবস্থায় প্রিয়জনের সঙ্গে দূরত্ব মেটাতে চেষ্টা করতে হবে আপনাকেই। কিছু বিষয়ে যত্ন নিন। চলুন দেখে নেই এই বিষয়গুলো।

অকারণে সন্দেহ
প্রিয়জনকে অকারণে সন্দেহ করবেন না। যেকোন বিষয়ে দ্বিধা থাকলে তা কথা বলে মিটিয়ে নিন। সন্দেহ না করে সরাসরি বলুন। তবে তা অবশ্যই সহনশীল হয়ে।

খিটখিটে অভ্যাস
প্রিয়জনের সঙ্গে কথা বলুন সহনীয়ভাবেই। অন্য কাজের জন্য মেজাজ খারাপ হলে কখনোই তা প্রিয়জনের উপর দেখাবেন না। খিটখিটে কণ্ঠে কথা বলবেন না। এতে সম্পর্ক আরো নাজুক হয়ে যাবে।

কথা চেপে রাখবেন না
ব্যস্ততায় সময় করে কথাও হচ্ছে না প্রিয়জনের সঙ্গে। আবার কথা হলেও প্রয়োজনীয় কথাই সেরে নিচ্ছেন। এই দিকে খেয়াল করুন। যেকোনও সম্পর্কের জন্য জরুরি হলো কমিউনিকেশন। আর কমিউনিকেশনের অন্যতম মাধ্যম কথা বলা। জমে থাকা না বলা কথাগুলো শেয়ার করুন।

যোগাযোগ বন্ধ রাখবেন না
সারাদিন কিছুক্ষণ পর পর কথা না বললেও যখনই সময় পাবেন প্রিয়জনকে ফোন দিন। খোজ নিন। ছোট ছোট মূহুর্তগুলো ফোনেই শেয়ার করুন। তার দিনটি কেমন ছিল এ বিষয়েও জানতে চান।

বিশেষ মূহুর্তগুলো নষ্ট করবেন না
প্রিয়জনের সঙ্গে বিশেষ মূহুর্তগুলো উপভোগ করুন। পরিকল্পনা করে নিন বিশেষ দিনটিকে নিয়ে। সারপ্রাইজও দিতে পারেন। আবার পরিকল্পনাটি তার সঙ্গেও ভাগাভাগি করে নিতে পারেন। এতে সম্পর্কের দূরত্ব কমবে।

যুক্তি চাপিয়ে দিবেন না
ভালো একজন শ্রোতা হতে হবে। আপনার সামনের মানুষটি ঠিক কী বলতে চাইছে তা শুনুন। নিজের যুক্তি তার উপর চাপিয়ে দেবেন না। প্রিয়জনের মতামতকে গুরুত্ব দিন। তাহলে আপনার কথাও তার কাছে গুরুত্ব পাবে।

ইমোশন চেপে রাখবেন না
আপনার ভালোলাগা, খারাপ লাগাগুলো প্রিয়জনের সঙ্গে শেয়ার করুন। কিছু বিষয় সবসময় মস্তিষ্ক দিয়ে বিচার না করে ইমোশন দিয়েও ভাবতে পারেন। দেখবেন কেমন সুন্দরভাবে এগিয়ে চলেছে আপনার সম্পর্ক।