• ঢাকা
  • শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১, ২৭ চৈত্র ১৪২৭
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১, ০৪:০৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ২, ২০২১, ০৪:০৩ পিএম

আপনি কি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন?

আপনি কি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন?

আপনি কি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন? আপনার জীবনকে পরিবর্তন করতে পারে এমন চ্যালেঞ্জিং কোনো কিছু নির্বাচনের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত গ্রহণে দ্বিধায় পড়ে যাচ্ছেন। তবু প্রায়ই এমন পরিস্থিতিতে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এই সময় আপনি যদি নার্ভাস হয়ে যান। তবে এ ক্ষেত্রে নিজেকে প্রস্তুত করে নিতে বেশ কিছু ছকে নিজেকে রাখতে পারেন।

হার্ভার্ড বিজনেস রিভিউয়ের এক গবেষণা অনুসারে, আপনার সিদ্ধান্ত নেওয়ার দক্ষতাও গণিত, সমাজবিজ্ঞান, সংবেদনশীলতা, অর্থের বিষয়াদি এবং কূটনৈতিক জ্ঞানের মতো একটি বিষয়।

তাই স্মার্ট ও স্বাস্থ্যকর একটি সিদ্ধান্ত নিতে খেয়াল রাখুন কিছু বিষয়ে।

  • সিদ্ধান্ত নেওয়ার সাহস থাকতে হবে। যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে সাহস রাখুন। আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। আপনার নেওয়া সিদ্ধান্ত অবশ্যই ভালো হবে এ বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী হোন।
  • পরিস্থিতিকে সব দিক থেকে বিবেচনা করুন। সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হবে। যখন আপনার সিদ্ধান্ত গ্রহণের বিষয়টি আসে তখন উভয় পক্ষের জিনিসগুলো দেখে নেওয়া ভালো। অনেক পরিস্থিতিতে আপনার মন যা বলবে তাই করতে ইচ্ছে হবে। কিন্তু এমনটা না করে আপনাকে এমন প্রমাণের সন্ধান করতে হবে, যা আপনাকে ভুল প্রমাণ করতে পারে। এই জিনিসগুলোতে আপনার দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন হতে পারে।
  • নিজের ধ্যানধারণা স্থির রাখুন। অস্থিরতায় নেওয়া সিদ্ধান্ত কখনো ভালো হয় না। যেকোনো কিছুতে সিদ্ধান্ত নিতে ভালোভাবে পর্যালোচনা করুন। এতে নেতিবাচক ও ইতিবাচক দিকগুলো নির্ধারণ সহজ হবে।
  • সিদ্ধান্ত গ্রহণে আপনি কী বেশি ইমোশনাল হয়ে পড়েন? কখনো কখনো কান্নাও করেন? এমন প্রবণতা থেকে বেরিয়ে আসুন। আপনি যদি ভালো সিদ্ধান্ত নিতে চান, তবে আপনাকে অবশ্যই যুক্তি থেকে সংবেদনগুলো নির্ধারণ করতে হবে। পরিস্থিতি উপলব্ধিতে আপনি তথ্য ব্যবহার করতে পারেন। এই সামান্য অন্তর্দৃষ্টির প্রক্রিয়া আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করতে পারে।
  • সামাজিক চাপকে ভুলে যান। প্রচুর লোক রয়েছে যারা আপনার সিদ্ধান্তগুলোকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করবে। তৃতীয় পক্ষ যিনি উদ্দেশ্যমূলক হতে পারেন। তাই অনাকাঙ্ক্ষিত পরামর্শ থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখুন। যেহেতু আপনার জীবন আপনার ক্যারিয়ারের চেয়ে অনেক বেশি, আপনি সিদ্ধান্তের আগে গভীরভাবে ভেবে নিন।
  • কোনোভাবেই সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না, এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বাসযোগ্য বন্ধুর পরামর্শ নিতে পারেন। অনেক ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে খুব কঠিন সময় কাটাচ্ছেন তবে পেশাদার কারও সাহায্য নিতে পারেন। কোথাও বিনিয়োগের জন্য কোনো আর্থিক প্রতিনিধির সিদ্ধান্ত নিতে সেরা হতে পারে।
  • পরিস্থিতকে ভয় পাওয়া বন্ধ করুন। আপনি যে সিদ্ধান্ত নেবেন তার পরিণতি কী হবে তা ভেবে অবাক হবেন না। অবশ্যই আপনি আপনার সুখ এবং স্বাচ্ছন্দ্যের উপর ভিত্তি করে একটি পছন্দ করার চেষ্টা করছেন। আপনি যে ভয় অনুভব করছেন তা মানসিক স্থিতিস্থাপকতা থেকে হচ্ছে। তাই সর্বদা সিদ্ধান্ত নিরাপদ হচ্ছে কি না, তা ভাববেন না। মনে রাখবেন, কখনও কখনও জীবনের সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য ঝুঁকি সর্বাধিক পুরষ্কারে পরিণত হয়।
  • অন্যের মতামত বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নিজে নিন। আপনি অন্যের দৃষ্টিকোণ থেকে জিনিসগুলো দেখুন। সিদ্ধান্ত নেওয়া কঠিন হবে না।
  • আপনার পছন্দের জিনিসগুলোর বিকল্পে সীমাবদ্ধতা রয়েছে এটি মাথায় রাখুন। আপনার যতবেশি বিকল্প থাকবে ততই ভুল হওয়ার ঝুঁকিও বেশি থাকবে।
  • আপনার ইমোশনগুলোকে নিয়ন্ত্রণে রাখুন। আপনি কী জানেন, সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আপনার আবেগগুলো শত্রু হতে পারে? কোনো পরিস্থিতি সম্পর্কে ইমোশনাল অনুভূতিগুলো আপনার মনকে ‘লড়াই বা ফ্লাইট মোডে’ রাখতে পারে। আপনার সংবেদনগুলো সিদ্ধান্ত গ্রহণে একটি বড় ভূমিকা পালন করে। আপনার অনুভূতি অবশ্যই আপনার অনুপ্রেরণা এবং আপনার চিন্তাভাবনা উভয়ের ওপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলে।

আরও পড়ুন