• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১, ৭ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: মার্চ ৪, ২০২১, ০৪:১৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ৭, ২০২১, ১১:৩৩ এএম

গ্রীষ্মের ভোরে ৫টি অভ্যাস করুন

গ্রীষ্মের ভোরে ৫টি অভ্যাস করুন

শীত শেষে বেড়েছে গ্রীষ্মের তাপ। ঘরে কিংবা বাইরে দুই ক্ষেত্রেই ব্যস্ততা। প্রতিদিনের রুটিনেও এসেছে বেশকিছু পরিবর্তন। শীতের ভোরে যেমন আলসেমিতে ঘুম ভাঙে না, সেখানে গ্রীষ্মের গরমে যেন বিছানা থেকে উঠতেই তাড়া থাকে। কেবল তাপমাত্রা বাড়ছে বলেই নয়, গ্রীষ্মের দিনের সময়টাও আরও দীর্ঘ হয়। তাই কাজের রুটিনেও ভিন্নতা আসে। তবে স্বাস্থ্যের খেয়াল রেখেই গ্রীষ্মের ভোরটা কেমন হবে তা সাজিয়ে নিতে পারি।

নিজের বিছানা নিজেই তৈরি করুন

আপনার দিন শুরু করার আগে আপনার বিছানা তৈরি করতে কয়েক মিনিট সময় নিন। ভোরে ঘুম থেকে উঠেই বিছানা গুছিয়ে নিন। যেহেতু গরমের সময়টাতে ভারী কোনও কিছু বিছানায় থাকে না তাই ঝটপট বিছানা গুছিয়ে নিতে পারেন। অগোছালো বিছানা আপনার পুরো ঘরটিকে অগোছালো দেখানোর ক্ষমতা রাখে। অন্যদিকে বিছানা সুন্দরভাবে গুছিয়ে নিলে আপনার ঘর আরও প্রাণবন্ত দেখাবে।

এক লিটার পানি পান করুন

বিছানা গুছিয়েই যেই কাজটি করবেন, তা হলো খালি পেটে নরমাল পানি পান করুন। আপনি ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায়  আপনার শরীর প্রায় 8 ঘণ্টা পানিশূণ্য থাকে। তাই ঘুম থেকে জেগে উঠলেই পানির চাহিদা পূরণ প্রয়োজন। সারা বছর তো বটেই, গ্রীষ্মের সময় এর গুরুত্ব আরো বেড়ে যায়। তাই চা বা কফির আগে কমপক্ষে এক লিটার পানি পান করুন। যা আপনাকে ভেতর থেকে পুনরুজ্জীবিত করতে সহায়তা করবে।

ভোরের রোদ গায়ে লাগান

ভোরের রোদ, তাজা বাতাস স্বাস্থ্যকর রুটিনের একটি। আপনি পানি পান করে বাড়ির উঠোন বা বারান্দা কিংবা বাড়িরে ছাদে গিয়ে তাজা বাতাসে নিশ্বাস নিন। আপনার ত্বকে রোদ লাগান। এরপর আপনার পেশীগুলো প্রসারিত করতে এবং আপনার রক্ত ​​সঞ্চালন স্বাভাবিক করতে হালকা ব্যয়াম করে নিতে পারেন। এটি শরীরকে শান্ত করে, পাশাপাশি মনকেও ধীর করে দেয়। এরপর দীর্ঘ নিশ্বাস নিন। ফুসফুসের পুরো প্রসারণ হবে।

ঠান্ডা পানিতে গোসল নিন

ঠান্ডা পানিতে গোসল ভালো নয়, তবে গরমের সময়টাতে ঠান্ডা পানির গোসল কিন্তু প্রশান্তি দিবে। ঘুমোতে যাওয়ার  আগে হালকা গরম পানি ব্যবহার করতে পারেন। তবে ভোরে ঠাণ্ডা পানির গোসল আপনার সামগ্রিক সুস্থতার জন্য অবিশ্বাস্যরূপে উপকারী। চুলকানি কমাবে, ঘুম ভাঙবে, পেশীর ব্যথা কমাবে, চুল চকচকে করবে এবং ত্বকের শুভ্রতা ফুটে উঠবে। বরফ পানি নয়, নিজের পছন্দমতো পানির সামঞ্জস্য করে ব্যবহার করুন। প্রথমে পায়ের গোড়ালি, এরপর ধীরে ধীরে বাহুতে এবং পড়ে মাথায় ঠান্ডা পানি ঢেলে পুরো শরীর ধুয়ে ফেলুন।

স্বাস্থ্যকর নাস্তা তৈরি করুন

স্বাস্থ্যকর নাস্তা বলতে শুধু দুধ বা ডিমের কথাই ভাবেন অনেকে। তবে সারাদিনের কর্ম ব্যস্ততায় ভোরেই ভারী নাস্তা সেরে নিতে হয় তা জানেন কি? প্রোটিন খাবারগুলো নাস্তার তালিকায় রাখতে পারেন। এছাড়াও কলা, বাদাম বা অ্যাভোকাডোগুলো বেছে নিন। এগুলোতে খুব বেশি সময়ও ব্য়য় হবে না। ঝটপট নাস্তা সেরে বেড়িয়ে পড়ুন দৈনন্দিন ব্যস্ততায়।