• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২১, ১০:৪৭ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২৫, ২০২১, ০৩:৩০ এএম

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘের উদ্যোগে প্রীতিভোজ

বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘের উদ্যোগে প্রীতিভোজ
ছবি : সামাওয়াতি খান

সামাজিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘের উদ্যোগে প্রবীণদের জন্য এক প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়।

গতকাল (২৩ জুন) রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের প্রবীণ সংঘে বসবাসরত পঞ্চাশজন প্রবীণের উদ্দেশে এই প্রীতিভোজ আয়োজিত হয়। যেখানে তাদের জন্য মনোরম পরিবেশে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়েছে।

এই আয়োজনে অতিথি হিসেবে ছিলেন সংঘের সভাপতি এবং মহাসচিব (ভারপ্রাপ্ত) বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল মাননান, প্রবীণ বন্ধু ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ডাঃ মহসীন কবির, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসমত-আরা হ্যাপী এবং নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ড. মুসলিমা জাহান। বিশেষ এই উদ্যোগ সফল করতে সংঘের কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নিবেদিতভাবে কাজ করেন। অনুষ্ঠানে সহযোগিতায় ছিল দি ডে-লাইট ফাউন্ডেশন।

এ প্রসঙ্গে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ড. মুসলিমা জাহান বলেন, সমাজ বদলে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। যৌথ পরিবার ভেঙে তৈরি হচ্ছে ছোট ছোট পরিবার। একা হয়ে যাচ্ছে আমাদের প্রবীণ জনগোষ্ঠী। অনেকের সামর্থ্য থাকলেও সেবা ব্যবস্থাপনার অপ্রতুলতার কারণে বাড়ছে ভোগান্তি। প্রযুক্তিগত পরিবর্তন মেনে এবং মানিয়ে নিলেও সামাজিক পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে চলতে আমাদের যে মানসিক, সামাজিক ও অবকাঠামোগত প্রস্তুতির প্রয়োজন তা নিয়ে ভাববার সময় এসেছে।

তিনি বলেন, প্রবীণ সেবার সুবিধা বিস্তারে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই এর ব্র্যান্ডিং তৈরিতে আমাদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে। বর্তমান সরকার তার জন্য কাজ করে চলেছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন প্রবীণদের সেবা দিতে। বৃদ্ধ-ভাতা চালুর পাশাপাশি প্রবীণ নিবাস প্রতিষ্ঠা ও তার উন্নয়নে তাঁর সরকারের ভূমিকা প্রশংসনীয়।

অনুষ্ঠানের আলোচনায় বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে প্রবীন সমাজের প্রতি দায়িত্বপালনে সকলকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান উপস্থিত অতিথিবৃন্দ।

জাগরণ/এসকে