• ঢাকা
  • শনিবার, ০৬ জুন, ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৪, ২০২০, ০৭:০৯ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৪, ২০২০, ০৭:৫৩ পিএম

‘উৎসবের দিন নয় আজ, বিপন্নকে উদ্ধারের দিন’

জাগরণ প্রতিবেদক
‘উৎসবের দিন নয় আজ, বিপন্নকে উদ্ধারের দিন’
সনজীদা খাতুন ● ছায়ানট

বাংলা নববর্ষ উদযাপন নিয়তই মানুষে-মানুষে, মানুষে-প্রকৃতিতে অভিনব এক সংযোগ সৃষ্টি করে। নতুন দিনের আশা নিয়ে নববর্ষ ফিরে ফিরে আসে বাঙালির জীবনে। কিন্তু আজ নতুন বছরের বার্তা যেন নতুন আশাকে ধূলিসাৎ করে দিতে চায়।

জাতির জীবনে আজ ঘোর দুর্দিন। সমগ্র বিশ্বসমাজ আজ বিধ্বংসী মহামারীতে আক্রান্ত।

বাংলা নববর্ষ ১৪২৭ উপলক্ষে এক ভিডিওবার্তায় এ সব কথা বলেছেন ছায়ানট সভাপতি সনজীদা খাতুন।

প্রতিবছর ছায়ানট আয়োজিত বাংলা নববর্ষ বরণের প্রভাতী অনুষ্ঠান শেষে বৈশাখ কথনে অংশ নেন তিনি। কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারির কারণে এবার রমনা বটমূলে ছায়ানটের বর্ষবরণের প্রভাতি অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।   

সনজীদা খাতুন বলেন, উৎসবের দিন নয় আজ। বিপন্ন মানুষকে উদ্ধার করবার দিন। নিজে নিরাপদ থাকার পাশাপাশি সবাইকে নিরাপদ রাখার সময়। এই সর্বব্যাপী বিপদে আক্রান্ত বিরূপ বিশ্বে মানুষ একা হয়ে পড়েছে, আবার সব বিশ্ববাসী আজ একই সংগ্রামের সহযাত্রী হয়ে মিলেমিশে একাকার।

তিনি আরও বলেন, দ্বিতীয় মহাযুদ্ধে সভ্যতার যে-সঙ্কট দেখে রবীন্দ্রনাথ শিহরিত হয়েছিলেন, আজকের সঙ্কট তার চেয়েও বহুবিস্তৃত। পৃথিবীর গভীর-গভীরতর অসুখে আমরা এ-ও জানি বিপুল ধ্বংসলীলা আসন্ন হলেও, সেকথাই একমাত্র সত্য নয়। মানবকল্যাণের জন্য আমরা ঐকান্তিক চেষ্টা এবং ঐকান্তিক মিলনের শপথে ঐক্যবদ্ধ হবো আজ। মহাবিশ্বের প্রতিটি মানুষ পরস্পর অদৃশ্য ঐক্যসূত্রে বাঁধা। সভ্যতা, মানবতা ও প্রকৃতির নিবিড় মেলবন্ধনে আমরা আস্থা রাখি। কামনা করি বিচ্ছিন্নতা ও বন্দিত্ব পেরিয়ে নতুন উপলব্ধিতে নতুন বিশ্ব গড়বার প্রেরণা সঞ্চারিত হবে সবার মধ্যে, মহা-সঙ্কট বয়ে আনবে মহা-পরিবর্তন, কেননা, মানুষই পারে ধ্বংসস্তূপ থেকে উঠে আলোর পথের অভিযাত্রী হতে। 

নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে সনজীদা খাতুন বলেন, পৃথিবীর ঘরে ঘরে যত মানুষ আছে, সবার জন্যে শুভকামনা জানাই আমরা। জয় আমাদের হবেই। সবার সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে রবীন্দ্রনাথের সেই কথা ফিরে উচ্চারণ করব আজ–‘জয় হোক মানুষের, ওই চিরজীবিতের’। 

এসএমএম

আরও পড়ুন