• ঢাকা
  • সোমবার, ০১ জুন, ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ২, ২০২০, ১০:২০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২, ২০২০, ১০:৫৯ পিএম

এস এম সাব্বির খানের নির্বাচিত ছড়া

.
এস এম সাব্বির খানের নির্বাচিত ছড়া

পত্রকার

এস এম সাব্বির খান

খুনসুঁটি, হেসে লুটোপুটি 
আমি চুনোপুঁটি সরকার,
জীর্ণ কুর্তাটা, কাগুজে বার্তাটা,
পথে ফেরি করি সমাচার।।

রাত জেগে লিখি আগে ভাগে
যেন ‘জন’ জেগে পাঠ পায়,
প্রতি সংবাদে সাজি সঙ বাদে
বাঁচি পেটে ভাতে, নিরুপায়।।

ঐ চিরকুটে পুরো তল্লাটে
লড়ি দুর্নীতি, দুরাচার, সদাচারি 
আমি ভুকে মরি
থাকে দুধে-ভাতে, বাটপার।।

মোরে কানে কানে, কভু কান টেনে
দেয় হুঁশিয়ারি পাপাচারী,
ক্রোধ চেহারাতে, বসা কেদারাতে
করে রাজ্যের সর্দারি।।

‘ঐ পত্রকার ব্যাটা বেড়েছে বাড়
এহ! সাহস ভার, লিখো যা তা,
আমি লুট করি, করি ভোট চুরি
তাও ‘প্রিয় নেতা’- জনতার।।

ফের যা তা লিখে, দিলে দরবারে
যদি ভুল ধরে রাজা মোর,
খাসা জারি-জুড়ি, যদি ধরা পরি
তবে খাটিয়া সাজাবো তোর!
কব পেয়াদারে, ‘দে রে জেলে পুরে
কবি গাজাখোর, করে নেশা,
কিসে পত্রকার? ব্যাটা বাটপার,
করে ধান্ধা আর, কহে পেশা।’
কব দরবারে, লিখে মিথ্যা সে।।

আমি সদাচারি, মহারাজ,
চির অনুগত, এ-ই শির নত,
নই ওর মতো চালবাজ।’
হেসে এক গালে, কাঁধে ব্যাগ তুলে
ঝাড়ে কুর্তাটা মসিয়াল,
হাঁকে, ‘ঐ ব্যাটা, ওঠা পর্দাটা
সব জেনে গেছে রাজপাল!
দিনে রাতে রাজা নিজ হাতে
পোষে স্বার্থ সে জনতার,
আর প্রজা মেরে ওরা লুট করে
সব দুরাচারি, চাটুকার!
‘সেনাপতি, ডাকো জল্লাদে
করো শায়েস্তা এই বদে।
‘রাজ হুঙ্কারে কাঁপে থর থরে;
দেহ সে ভীষণ ক্রোধে।।

‘মহারাজ, তবে আসি আজ।।

শুভ রাজ কাজে আছি পাশে,
পেলে দেশদ্রোহী, হবো ফের দ্রোহী
দেব নাশ করে মসি ঘষে।।

রাজ উপহার? থাক জনতার,
হবে উপকার সংকটে,
রাজা ভালোবাসে তাতে প্রজা হাসে,
দেখেই ভুক-ভাল যায় মিটে।’
সবিশেষে, মসি মুঠে কষে
তার দৃঢ় পায়ে হেঁটে চলা,
রাজা দেখে হাসি, যায় বীরবেশী,
এক সত্যের ফেরিওয়ালা।।

কবি ও সাংবাদিক