• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯, ০৫:১৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯, ০৬:২৪ পিএম

সচিবালয়ে টাস্ক ফোর্সের বৈঠক 

দুর্যোগে প্রতিবন্ধীদের জন্য তৈরি হবে ৬০টি রেসকিউ বোট

জাগরণ প্রতিবেদক
দুর্যোগে প্রতিবন্ধীদের জন্য তৈরি হবে ৬০টি রেসকিউ বোট
রেসকিউ নৌযানের কম্পিউটার গ্রাফিক্স - ছবি : জাগরণ

দুর্যোগে প্রতিবন্ধী, শিশু এবং সন্তানসম্ভবা নারীদের উদ্ধার (রেসকিউ) করতে ৬০টি বিশেষ নৌযান নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছে ডিজেবিলিটি ইনক্লোসিভ ডিজাস্টার রিস্ক ম্যানেজমেন্ট সংক্রান্ত জাতীয় টাস্ক ফোর্স।  প্রতিটি নৌযান তৈরিতে খরচ হবে ৪৫ লাখ টাকা। প্রাথমিক পর্যায়ে ৬০টি নৌযান নির্মাণের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর পরে আরো নৌযান নির্মাণ করা হবে।

আজ বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকালে সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে টাস্ক ফোর্সের চতুর্থ বৈঠকে এই বিশেষ নৌযান নির্মাণের অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠকে টাস্ক ফোর্সের প্রধান উপদেষ্টা সায়মা হোসেন (পুতুল) উপস্থিত ছিলেন। সভাপতিত্ব করেন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান। এছাড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল, এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলাল উদ্দিনসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 


বৈঠক শেষে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, ডিজেবিলিটি ইনক্লুসিভ ডিজাস্টার রিস্ক ম্যানেজমেন্ট বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জাতীয় টাস্ক ফোর্সের চতুর্থ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকে দুর্যোগ কবলিত এলাকায় যেন প্রতিবন্ধীদের পাশাপাশি শিশু ও সন্তানসম্ভাবনা নারীদের দ্রুত রেসকিউ করার বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে বিশেষ নৌযান নির্মাণের সিদ্ধান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। 

তিনি বলেন, নির্মাণ প্রতিষ্ঠান বছরে ২০টি করে রেসকিউ বোট নির্মাণ করতে পারবে। ৩ বছরে ৬০টি বোট নির্মাণ হবে। এগুলো দুর্যোগপূর্ণ ৩৫টি জেলায় পাঠানো হবে। 

প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, এই নৌযানে প্রতিবন্ধীদের হুইল চেয়ারসহ ওঠা-নামার ব্যবস্থা থাকবে। বেশ কয়েকটি কক্ষ এবং বাথরুমে প্রতিবন্ধী এবং শিশুদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হবে। ৮০ থেকে ১০০ জনের ধারণক্ষমতা থাকবে এই নৌযানে।

তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী গৃহহীনদের গৃহনির্মাণ করে দেয়ার জন্য খুবই আন্তরিক। দলের নির্বাচনি ইশতেহারেও এ বিষয়টি উল্লেখ ছিল। এরই আলোকে প্রতিবন্ধীদের জন্য ১১ হাজার গৃহ নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। আরো ২৩ হাজার গৃহ নির্মাণের কাজ চলছে। 

এমএএম/ এফসি

আরও পড়ুন

Islami Bank