• ঢাকা
  • সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯, ০৯:৩৮ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯, ০৯:৪০ এএম

বাংলাদেশের উন্নয়ন অনুকরণীয় : যুক্তরাষ্ট্র

জাগরণ প্রতিবেদক
বাংলাদেশের উন্নয়ন অনুকরণীয় : যুক্তরাষ্ট্র

অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ সকল খাতে বাংলাদেশের উন্নয়ন অনুকরণীয়। বাংলাদেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, তাতে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে খুব একটা সময়ের প্রয়োজন হবে না। উন্নত দেশগুলোর পাশে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতেও বেশি সময় অতিবাহিত করতে হবে না। সব রকম উন্নয়নে বাংলাদেশের পাশে থাকবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। 

বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার দেখা করে এসব কথা বলেন। যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি খাত একীকরণ কর্মকর্তা মিজ রেবেকা রবিনসন এ সময় রাষ্ট্রদূতের সাথে ছিলেন। ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মাক্ছুদুর রহমান পাটওয়ারী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সন্ধ্যায় সচিবালয়ে ভূমিমন্ত্রী দৈনিক জাগরণকে বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ সকল খাতে গত দশ বছরে যে  উন্নয়ন সাধিত হয়েছে, মার্কিন রাষ্ট্রদূত তার প্রশংসা করে বলেছেন, বাংলাদেশের এ উন্নয়ন অনুকরণীয়। তিনি মনে করেন, এভাবে বাংলাদেশ যদি এগিয়ে যেতে পারে তবে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে খুব একটা সময়ের প্রয়োজন হবে না।

সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের ভূমি ব্যবস্থাপনা ও এর ডিজিটালাইজেশনের বিভিন্ন পরিকল্পনার ব্যাপারে রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করা হলে তিনি এসব উদ্যোগের প্রশংসা করেন। রাষ্ট্রদূত এ সময় ভূমিমন্ত্রীকে ভূমি উন্নয়ন বিষয়ক সহায়তা প্রদানে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

মন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করেছি ভূমি মন্ত্রণালয় দেশের সাধারণ মানুষের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং সেবা খাতের অন্যতম মন্ত্রণালয়। ভূমি ব্যবস্থাপনা স্বয়ংক্রিয় হয়ে গেলে এখানে দুর্নীতি জিরোতে নামিয়ে আনা সম্ভব হবে। 

তিনি জানান, মার্কিন রাষ্ট্রদূত জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায়  বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এছাড়া বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নেরও প্রশংসা করে আর্ল রবার্ট মিলার বলেন ‘বোস্টন ও হার্ভার্ড সহ নাম করা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন কনফারেন্সে উদীয়মান বাংলাদেশের ব্যাপারে আলোচনা করা হচ্ছে।’

যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যয়নরত বাংলাদেশী ছাত্রদের ‘সুপারস্টার’ উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, তারা (তাদের জীবন) আমেরিকান সফলতার গল্পের চিরায়ত উদাহরণ। বিদেশে কাজ করা বাংলাদেশী শ্রমিকদের প্রশংসা করে রাষ্ট্রদূত বলেন তারা খুবই পরিশ্রমী ও বিশ্বস্ত।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের ৫০ বছরের স্বাধীনতা উদযাপনে সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে। 

এমএএম/টিএফ

আরও পড়ুন