• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ৯, ২০১৯, ০১:৪৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৯, ২০১৯, ০১:৪৩ পিএম

শ্রমিক লীগের সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী

‘দোয়া করবেন ঘূর্ণিঝড়ে যেন ক্ষয়ক্ষতি না হয়’ 

জাগরণ প্রতিবেদক 
‘দোয়া করবেন ঘূর্ণিঝড়ে যেন ক্ষয়ক্ষতি না হয়’ 
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা - ফাইল ছবি

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলে’ যেন ক্ষয়ক্ষতি না হয় সেজন্য দেশবাসীকে দোয়া চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ঝড় ও ঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায়  সরকারের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। 

শনিবার (০৯ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় শ্রমিক লীগের ১২তম জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শ্রমিকদের কল্যাণে বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার। সরকারের ধারাবাহিকতা থাকায় দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, সুফল ভোগ করছে সাধারণ মানুষ।  ২৯ বছর এদেশের মানুষ শুধু বঞ্চনার শিকার হয়েছে। ১৯৭৫ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল— এই ২১ বছর আর ২০০১ থেকে ২০০৮ সাল— এই ৮ বছর বাংলাদেশের মানুষ বঞ্চনা ভোগ করেছে।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ানসহ বিদেশি তিনজন অতিথি উপস্থিত আছেন। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করছেন জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ এবং সভা পরিচালনা করছেন সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম।

এই সম্মেলনেই ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে কাউন্সিল (দ্বিতীয়) অধিবেশনে নতুন নেতৃত্ব ঘোষণা করা হবে। এবারের সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে পরিবর্তন হয়ে স্বচ্ছ ভাবমূর্তিসম্পন্ন, সক্রিয়, দক্ষ ও কর্মীবান্ধব নতুন নেতৃত্বের আশা করছেন নেতাকর্মীরা।

এর আগে শান্তির প্রতীক সাদা পায়রা আর বেলুন উড়িয়ে জাতীয় শ্রমিক লীগের ১২তম জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। শনিবার সকাল ১০টা ৪০মিনিটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলন মঞ্চে এসে পৌঁছান তিনি। 

সম্মেলন উপলক্ষ্যে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিশাল সম্মেলন মঞ্চ ও প্যান্ডেল নির্মাণ ছাড়াও সম্মেলন স্থল ও আশপাশের সড়কগুলোকে বর্ণাঢ্য সাজে সাজিয়ে তোলা হয়েছে। এতে আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক লীগের ইতিহাস ঐতিহ্যের পাশাপাশি বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরা হয়েছে।

সম্মেলনে কেন্দ্রীয় কমিটিসহ সারা দেশে সংগঠনটির ৭৮টি সাংগঠনিক জেলা থেকে সকাল ৭টার পর থেকে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে সম্মেলন স্থলে উপস্থিত হয়েছেন শ্রমিক লীগের প্রায় ১৬ হাজার কাউন্সিলর ও ডেলিগেটস।

শ্রমজীবী মানুষের দাবি আদায় ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় ১৯৬৯ সালের ১২ অক্টোবর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় শ্রমিক লীগ প্রতিষ্ঠা করেন। শুরুতে এটি আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে থাকলেও বর্তমানে ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন হিসেবে কাজ করছে। ২০১২ সালের ১৯ জুলাই সংগঠনের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

জেড এইচ/বিএস