• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল, ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০, ০৩:২৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০, ০৩:৪৮ পিএম

‘পশ্চিমারা কোভিড-১৯ নিয়ে অপপ্রচার ছড়াচ্ছে’

জাগরণ প্রতিবেদক
‘পশ্চিমারা কোভিড-১৯ নিয়ে অপপ্রচার ছড়াচ্ছে’
বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং ● ইউএনবি

কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে চীনের বিকল্প হিসেবে অন্যদেশে ব্যবসা স্থানান্তর না করতে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেস ক্লাবে কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিক্যাব আয়োজিত ডিক্যাব টকে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় ডিক্যাব সভাপতি আঙ্গুর নাহার মন্টি এবং সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, পরিস্থিতি বিবেচনা করে অন্যদেশে ব্যবসা স্থানান্তর হবে ব্যয়বহুল, অসম্ভব এবং অপ্রয়োজনীয়।

তিনি বলেন, কোভিড-১৯ সম্পর্কে চীন স্বচ্ছতা বজায় রেখেছে এবং সব তথ্য বিশ্বকে জানানো হচ্ছে। এই ভাইরাস চীনে সৃষ্টি হয়েছে, তা সত্য নয়। এমনকি অনেক দেশ চীনকে দোষারোপ করছে, যা বাঞ্ছনীয় নয়। চীনের সরকার এ ইস্যুতে খুবই সতর্ক ভূমিকা পালন করছে।

সংক্রমণ রোধে করণীয় নির্ধারণে বিশ্ববাসীকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, চীন আন্তর্জাতিক মানের চিকিৎসা কেন্দ্র গড়ে তুলেছে। বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আড়াই হাজার চিকিৎসা-কর্মীকে উহান রাজ্যে নিয়োগ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকায় চীনের দূতাবাস চীনা নাগরিকদের এ দেশে থাকতে নির্দেশনা দিয়েছে এবং বাংলাদেশে বিভিন্ন কাজে যুক্ত যারা চীনে ফিরে গেছেন তাদের এখনই ফিরে আসতে নিষেধ করা হয়েছে। চীনে কর্মরত একজনও বাংলাদেশি এবং বাংলাদেশে কর্মরত কোনও চীনা নাগরিক এখনও কভিডভাইরাসে আক্রান্ত হননি।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারই এখানে মূল ভূমিকা পালনকারী, চীন নয়। তবে এই সমস্যার সমাধানে চীন দুই দেশকেই সহায়তা করছে।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে ত্রিপক্ষীয় পদ্ধতির কথা উল্লেখ করে এ বিষয়ে দ্রুত অগ্রগতির আশাবাদ ব্যক্ত করেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

এসএমএম