• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ১, ২০২০, ০৪:৫৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১, ২০২০, ০৪:৫৮ পিএম

প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসায় কওমি মাদ্রাসার নেতৃবৃন্দ

জাগরণ প্রতিবেদক
প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসায় কওমি মাদ্রাসার নেতৃবৃন্দ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ● ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) এর পরিস্থিতির মধ্যে পবিত্র রমজান উপলক্ষে কওমি মাদ্রাসাগুলোকে ৮ কোটি ৩১ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন কওমি মাদরাসার নেতৃবৃন্দ।

কওমি মাদ্রাসার রংপুর বিভাগীয় সমন্বয়কারী ও আল জামিয়াতুল কারিমিয়া নূরুল উলুম মাদ্রাসার সহ-অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইউনুস আলী অনুদান পাওয়ার পরে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আগের বারের মতো, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে এবারও দেশের মাদ্রাসাগুলোর জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, যা আমাদের মনোবলকে চাঙ্গা করেছে।

তিনি বলেন, রংপুর বিভাগের মোট ৭০৩ টি মাদ্রাসা এরই মধ্যে ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফারের মাধ্যমে অনুদান পেয়ে গেছে।

আলী বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘজীবন ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি এবং প্রার্থনা করি যাতে দ্রুত কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

তিনি বলেন, তারা (কওমি মাদ্রাসার নেতারা) প্রার্থনা করছেন যাতে প্রধানমন্ত্রী পরিস্থিতিটি দক্ষতার সঙ্গে মোকাবেলা করতে পারেন।

কওমি মাদ্রাসাগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে খুলনা দারুল উলুম মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস ও খুলনা কওমি উলামা পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা নাসির উদ্দিন কাসেমী বলেন, মাদ্রাসার শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য এটি প্রধানমন্ত্রীর এক মহৎ দৃষ্টিভঙ্গি।

তিনি আরও বলেন, এটি কেবল বাংলাদেশ নয়, সমগ্র বিশ্বের জন্য একটি অনন্য উদাহরণ হয়ে থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের সেবায় নিজেকে নিবেদিত করেছেন উল্লেখ করে কাসেমী বলেন, অতীতে যারা রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিলেন তাদের কেউই বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর মতো ইসলামের সেবা করেননি।

তিনি প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ূ ও সুস্বাস্থ্য কামনা করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার পিতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পদচিহ্ন অনুসরণ করে ইসলামের সম্প্রসারণের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন।

খুলনা মহানগরীর আল মাহাদ আস-সালাদী মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগ (আর্থিক সহায়তা প্রদান) কওমি মাদ্রাসায় জড়িত সবাইকে অনুপ্রাণিত করবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামী স্টাডিজ ও আরবি স্নাতকোত্তর ডিগ্রির মর্যাদার সঙ্গে কওমি মাদ্রাসায় দাওরা-ই হাদীস সনদকে স্বীকৃতি দিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষায় বৈষম্যের অবসান করেছেন।

মাওলানা মামুন আরও বলেন, তিনি (প্রধানমন্ত্রী) ইসলামের বিস্তারের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এই বিপদের দিনে কওমি মাদ্রাসাগুলোর জন্য ৮ কোটি ৩১ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে রাজশাহীর জামেয়া ইসলামিয়া শাহ মুখদুমের অধ্যক্ষ মুফতি শাহাদাত আলী বলেন, এটি দেশের কোনও সরকারের কওমি মাদ্রাসার জন্য আর্থিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসার ক্ষেত্রে ইতিহাসে প্রথম ঘটনা।

তিনি বলেন, এ কারণেই কওমি মাদ্রাসাগুলোর পক্ষ থেকে আন্তরিকভাবে স্বীকৃতি ও প্রশংসা পাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সঠিক ব্যক্তি।

মুফতি আলী বলেন, আমরা ইতোমধ্যে আমার মাদ্রাসার জন্য ২০ হাজার টাকা বরাদ্দ পেয়েছি এবং যা আমরা শিক্ষার্থীদের কল্যাণে অর্থ ব্যয় করব।

কেবল দরিদ্র ও অসহায় শিশুরা প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার জন্য কওমি মাদ্রাসায় আসে উল্লেখ করে মুফতি আলী বলেন, সুতরাং, এই সহায়তা তাদের শিক্ষার ক্ষেত্রে আরো উৎসাহিত করবে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক বরকুল্লাহ বিন দুরুল হুদা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহায়তা কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাকে এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও) সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র রমজান উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ৬,৯৫৯ টি কওমি মাদ্রাসাকে ৮ কোটি ৩১ লাখ ২৫ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন।
সূত্র জানায়, মাদ্রাসাগুলোর মধ্যে ৭০৩ টি রংপুর বিভাগে, রাজশাহী বিভাগে ৭০৪, খুলনা বিভাগে ১,০১১, বরিশাল বিভাগে ৪০২, ময়মনসিংহ বিভাগে ৩৯৭, ঢাকা বিভাগে ১,৭৮০, চট্টগ্রাম বিভাগে ১,৪৮১ এবং ৪৮১ টি সিলেট বিভাগে অবস্থিত।

এসএমএম

আরও পড়ুন