• ঢাকা
  • বুধবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০, ১২:১২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০, ১২:৩৪ পিএম

কে হচ্ছেন আল্লামা শফীর উত্তরসূরি?

জাগরণ ডেস্ক
কে হচ্ছেন আল্লামা শফীর উত্তরসূরি?

দেশের প্রাচীনতম বৃহৎ দ্বীনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চট্টগ্রামের হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অস্থিরতা চলছে দীর্ঘদিন ধরেই। হেফাজতে আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী এবং মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীর সমর্থকদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। বাবুনগরীকে নায়েবে মুহতামিম পদ থেকে সরিয়ে দেয়া এবং কোণঠাসা করে রাখার পেছনে আনাস মাদানীকে দায়ী করা হয়। যার ফলে টানা দুদিনের ছাত্রদের বিক্ষোভের জের ধরে এক পর্যায়ে অবরুদ্ধই ছিলেন মাদ্রাসার প্রায় ৩৪ বছরের পরিচালক আল্লামা আহমদ শফী। এরপর বিক্ষোভকারীদের দাবির মুখে বৃহস্পতিবার রাতের শুরা বৈঠকে নিজের অব্যাহতির পাশাপাশি ছেলে আনাস মাদানীকেও স্থায়ীভাবে মাদ্রাসা থেকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন আহমদ শফী। 

হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক হিসেবে কওমি মাদ্রাসাগুলোর নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন আহমদ শফী, যাদের কাছে তিনি ‘বড় হুজুর’ নামে পরিচিত ছিল। তিনি কওমি মাদ্রাসা বোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশেরও (বেফাক) সভাপতি। এছাড়া কওমি ধারা সংগঠন হেফাজতে ইসলাম নামে সংগঠনের আমিরের দায়িত্বতে ছিলেন। হাটহাজারীতে কয়েকদিনের ঘটনাপ্রবাহ এবং উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আল্লামা শফীর মৃত্যুর পর কওমি সংশ্লিষ্টদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ এই প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের নেতৃত্বে কে আসবেন- তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা-কল্পনা।

জীবদ্দশায় আল্লামা শফী এসব জায়গায় নেতৃত্বে থাকলেও পরবর্তীতে কে আসবেন, তার কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। আর এ কারণেই এসব প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের নেতৃত্বে কে আসবেন, তা নিয়েই মূলত আলেমদের মধ্যে আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। জানা 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আহমদ শফীর দাফন হওয়ার পর বিভিন্ন দোয়া কর্মসূচি পালনের পরই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা শুরু হবে।  

এ প্রসঙ্গে হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটির এক নেতা বলেন, হেফাজতে ইসলামের নিজস্ব সাংগঠনিক পদ্ধতি আছে, গঠনতন্ত্র আছে। মজলিসে শূরার সদস্যরা মিলে এর ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। 

এদিকে, আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামি‘আতিল কওমিয়ার সদস্য মাওলানা ফরীদউদ্দীন মাসঊদ বলেন, হাইয়াতুল উলইয়ার আইন আছে, সে আইনের ভিত্তিতেই হবে। প্রথম সমস্যা হবে বেফাকের সভাপতি কে হবেন। বেফাকের যিনি সভাপতি হবেন, তিনিই হবেন এই বোর্ডের চেয়ারম্যান।

উল্লেখ্য, আল্লামা শফী রাঙ্গুনিয়ার সরফভাটা মাদ্রাসায় পটিয়ার আল জামিয়াতুল আরাবিয়া মাদ্রাসা এবং হাটহাজারীর দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার পর ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসাতেও চার বছর লেখাপড়া করেন৷ ১৯৮৬ সালে হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক পদে যোগ দেন তিনি।এরপর থেকে টানা ৩৪ বছর ধরে তিনি ওই পদে ছিলেন।

জাগরণ/এমআর