• ঢাকা
  • শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১, ২৭ চৈত্র ১৪২৭
প্রকাশিত: মার্চ ৩, ২০২১, ০১:৫৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ৩, ২০২১, ০৬:১৭ পিএম

“ঠিক কোন কার্টুনের জন্য কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হলো?”

“ঠিক কোন কার্টুনের জন্য কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হলো?”

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের ৬ মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। বুধবার (৩ মার্চ) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে কিশোরের পক্ষে ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া শুনানি করেন। 

কিশোরের জামিনের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে কিশোরের বড় ভাই ও লেখক আহসান কবির জাগরণকে বলেন, “আমার ধারণা ছয় মাস পরও কিশোরের জামিন বহাল থাকবে। আমার ভাই কিশোর এখন অসুস্থ। ও জামিনে বেরিয়ে এলে সাথে সাথেই হাসপাতালে ভর্তি করতে হবে। কিশোর যে জামিন পেলো এটা আমাদের পরিবারের জন্য সুখবর। তবে আমি মনে করি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি একটি কালো আইন। এটি সংশোধন করা হলেও এর অপপ্রয়োগ থাকবে। আইনটি বাতিল করা হোক।" 

এদিকে, উন্মাদ পত্রিকার সম্পাদক আহসান হাবীব কিশোরের জামিনের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “কিশোর মুক্তি পেয়েছে এতে আমি খুশি। সে আমাদের কার্টুনিস্ট ছিল। আমরাই তাকে প্রথম উন্মাদ পদক দেই। আমি চাই সে স্বাধীনভাবে আবার কার্টুন শুরু করবে। তবে কোন কার্টুনের জন্য তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল সেটাও জানা দরকার।”

বাংলাদেশ কার্টুনিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হক কিশোর প্রসঙ্গে বলেন, “ঠিক কী কারণে কিশোরকে ধরা হয়েছে তা কিন্তু এখনো আমাদের কাছে পরিষ্কার নয়। তিনি জামিন পেয়েছেন, তাতে আমরা আনন্দিত। কিন্তু আমাদের জানাতে হবে তার বিরুদ্ধে অভিযোগটা আসলে কী? ঠিক কোন কার্টুনের জন্য তাকে গ্রেপ্তার করা হলো? এটা জানার অধিকার আমাদের রয়েছে। আমরা মনে করি মূল অভিযোগ জনসম্মুখে জানাতে হবে। কী কারণে তিনি কারাবন্দী ছিলেন তা স্পষ্ট করে আমাদের জানাতে হবে। তথ্য জানার অধিকার আমাদের আছে।” 

 

 

আরও পড়ুন