• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২১, ১২:১৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২০, ২০২১, ০৬:৩৬ পিএম

আজ কবি নির্মলেন্দু গুণের জন্মদিন

আজ কবি নির্মলেন্দু গুণের জন্মদিন
ছবিঃ কবি নির্মলেন্দু গুণ

পুরো নাম নির্মলেন্দু প্রকাশ গুণ চৌধুরী। এদেশের একজন প্রখ্যাত কবি এবং চিত্রশিল্পী। ১৯৪৫ সালের জুনের আজকের দিনে নেত্রকোণার বারহাট্টার কাশবন গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন বাংলা সাহিত্যের এই প্রেম ও দ্রোহের কবি।

অগণিত পাঠক ও ভক্ত কূলের নিকট নির্মলেন্দু গুণ নামেই পরিচিত ও নন্দিত তিনি। কবিতার পাশাপাশি তিনি গল্প, ছড়া, আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ, অনুবাদ এবং ভ্রমণকাহিনীও লিখে থাকেন। ৩৩টির ওপর কাব্যগ্রন্থের রচয়িতা এই কবির কবিতায় মূলত নারীপ্রেম, শ্রেণি-সংগ্রাম এবং স্বৈরাচার বিরোধিতার মতো বিষয়সমূহই বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। বাদ পড়েনি স্বাধীনতা পূর্বের ও পরের কোনো জাতীয় বিপর্যয়। যতবার তাঁর মাতৃভূমি বিপথগামী হয়েছে, ষড়যন্ত্রের নাগপাশে বাঁধা পড়েছে ততবারই কলম ধরেছেন তিনি, লিখেছেন একের পর এক শ্রেণীসংগ্রাম এবং স্বৈরাচার-বিরোধী কবিতা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর তাঁকে নিয়ে প্রতিকূল রাজনৈতিক পরিবেশে যে-ক’জন কবি ও লেখক সোচ্চার হয়েছেন, তিনি ছিলেন তাদের মধ্যে অগ্রগণ্য। 

১৯৭০ সালে প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘প্রেমাংশুর রক্ত চাই’ প্রকাশিত হবার পর তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। এই-গ্রন্থের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে লেখা ‘হুলিয়া’ কবিতাটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে এবং পরবর্তীতে এর ওপর ভিত্তি করে প্রখ্যাত নির্মাতা তানভীর মোকাম্মেল একটি পরীক্ষামূলক চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন।
এছাড়াও তাঁর ‘স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো’-কবিতাটির মতো অসংখ্য পাঠকপ্রিয় কবিতা রয়েছে। কবি নির্মলেন্দু গুণ নিজের জন্মভূমি নেত্রকোণায় গড়ে তুলেছেন ‘কবিতাকুঞ্জ’নামে কাব্য–গবেষণার একটি ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিষ্ঠান। 
১৯৮২ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরষ্কার, ২০১৬ সালে স্বাধীনতা পুরষ্কার এবং ২০০১ সালে একুশে পদক অর্জন করেন। 

দৈনিক জাগরণের পক্ষ থেকে কবির জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

জাগরণ/এসকেএইচ