• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২১, ০১:০০ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২০, ২০২১, ০৭:০১ পিএম

ঋণখেলাপি না করার অনুরোধ এফবিসিসিআইয়ের

ঋণখেলাপি না করার অনুরোধ এফবিসিসিআইয়ের

ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হলেও আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত কোনও ঋণকে মন্দ ঋণভুক্ত না করার প্রক্রিয়া চালু রাখতে বাংলাদেশ ব্যাংককে অনুরোধ জানিয়েছে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই)। 

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের কাছে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি  জসিম উদ্দিন।

এফবিসিসিআই সভাপতি ঋণমান বর্তমান অবস্থায় রাখার যুক্তি হিসেবে চিঠিতে লিখেছেন, ‘করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রমে বিরূপ প্রভাব এখনও বহাল আছে। বেশিরভাগ শিল্প ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাদের ঋণের কিস্তি সময়মত পরিশোধ করতে পারছে না। এ অবস্থায় বাংলাদেশ ব্যাংক ঘোষিত সুবিধাগুলোর মেয়াদ বৃদ্ধি করা না হলে বেশিরভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অনিচ্ছাকৃত খেলাপি গ্রাহকে পরিণত হবে, যা ব্যাংক খাতসহ পুরো অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে’।

এফবিসিসিআই সভাপতি চিঠিতে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর কারণে অর্থনীতিতে ক্ষতিকর প্রভাব এড়াতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নেয়া নানা পদক্ষেপের প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর, চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি ও ২৪ মার্চ জারি করা সার্কুলারের মাধ্যমে মেয়াদি ঋণের অবশিষ্ট মেয়াদ ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি করা, চলমান ঋণের ওপর আরোপিত সুদ ছয়টি ত্রৈমাসিক কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ, তলবি ঋণ পরিশোধের জন্য মার্চ ২০২১ থেকে আটটি সমান ত্রৈমাসিক কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ এবং ঋণের বিপরীতে মার্চ ২০২১ পর্যন্ত প্রদেয় ত্রৈমাসিক কিস্তি আগামী ৩ জুন পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছিল, যা সংকটেও ব্যবসা সচল রাখতে সহায়তা করেছে।

জসিম উদ্দিন বলেন, দেশের রফতানি বাণিজ্য সচল রাখার স্বার্থে শ্রমিক-কর্মচারীদের মজুরি বাবদ সরকারি তহবিল থেকে প্রণোদনা প্রদান, শিল্প ও সেবা খাতে চলতি মূলধন হিসেবে ঋণ প্রদান, প্রি-শিপমেন্ট ক্রেডিট খাতে পুনঃঅর্থায়ন স্কিম, সিএমএসএমই খাতের জন্য বিশেষ ঋণ সুবিধাসহ কৃষি খাতের চলতি মূলধন সরবরাহ, নিম্ন আয়ের পেশাজীবি, কৃষক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য পুনঃঅর্থায়ন স্কিম মহামারির সংকট সামাল দিতে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে।

জাগরণ/এসএসকে