• ঢাকা
  • রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮
প্রকাশিত: আগস্ট ৩, ২০২১, ০৩:৪৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ৩, ২০২১, ০৯:৪৬ এএম

টিভিইটি শিক্ষক ফেডারেশনের আহবায়ক ইদরীস, কালাম সদস্য সচিব

টিভিইটি শিক্ষক ফেডারেশনের আহবায়ক ইদরীস, কালাম সদস্য সচিব

শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাক্রমকে ৪ বছর থেকে হ্রাস করে ৩ বছরে রূপান্তর ও টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স বন্ধ করার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

রোববার (০১ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ইদ্রিস আলীর সভাপতিত্বে বাংলাদেশ টিভিইটি শিক্ষক ফেডারেশনের ভার্চুয়াল সাধারণ সভায় এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

এসময় বাংলাদেশ টিভিইটি শিক্ষক ফেডারেশন কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় বিরাজিত সমস্যা সমাধানে সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয়।

সভার শুরুতে ১৫ আগষ্ট ঘাতকের গুলিতে শহীদ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহীদ সকল সদস্যের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানানো হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনীয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)’র সভাপতি এ কে এম এ হামিদ ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইডিইব’র সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামসুর রহমান।

সভায় ফেডারেশনভূক্ত তিনটি সংগঠন বাংলাদেশ পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতি, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ শিক্ষক সমিতি ও ভোকেশনাল শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ও জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দের ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে সর্বসম্মতিক্রমে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি পুর্ণ:গঠন করা হয়।

সভায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি মোঃ ইদরীস আলীকে আহবায়ক ও ভোকেশনাল শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশের সভাপতি মোঃ আবুল কালামকে সদস্য সচিব করা হয়।

সভা থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাক্রমকে ৪ বছর থেকে হ্রাস করে ৩ বছরে রূপান্তর করার অযৌক্তিক ও আত্মঘাতি উদ্যোগ গ্রহণ করা, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ হতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স বন্ধ করা এবং যোক্তিক দাবী জানানোয় এই কোভিড-১৯ দুর্যোগময় সময়ে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক পলিটেকনিকের দুই জন শিক্ষকের হয়রানীমূলক বদলির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং বাংলাদেশ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র-শিক্ষক-পেশাজীবি সংগ্রাম পরিষদের ৪দফা দাবীর প্রতি পূর্ণ সমর্থন জ্ঞাপন করা হয়।

সভা থেকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা উপেক্ষা করে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে মর্যাদাহীন করায় ধৃষ্টতা প্রদর্শনের জন্য সংশ্লিষ্ট কারিগরি আমলাদের প্রতি ক্ষোভ ও নিন্দা জানানো হয় এবং অবিলম্বে তাদের এ ধরনের হীন কার্মকান্ড থেকে বিরত থাকার আহবান জানানো হয়।