• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২১, ১২:০৭ এএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২৪, ২০২১, ০৬:০৭ পিএম

পীরগঞ্জে হামলা

জড়িত থাকার কথা স্বীকার সৈকত ও রবিউলের

জড়িত থাকার কথা স্বীকার সৈকত ও রবিউলের
সংগৃহীত ছবি

রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দুপল্লীতে হামলার ঘটনায় র‌্যাবের হাতে গ্রেফতারর ছাত্রলীগ নেতা সৈকত মণ্ডল (২৪) ও স্থানীয় মসজিদের মুয়াজ্জিন রবিউল ইসলাম (৩৬) ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

রোববার (২৪ অক্টোবর) রাতে রংপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত- ২ এর বিচারক দেলোয়ার হোসেনের কাছে তারা দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

সৈকত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় এবং রবিউল ইসলাম অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন বলে জানিয়েছেন কোর্ট জিআরও সহিদুল ইসলাম। 

সৈকত রংপুরের কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের দর্শন বিভাগ কমিটির সহ সভাপতি ছিলেন। ঘটনার একদিন পর ১৮ অক্টোবর তাকে ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। তার বাড়ি পীরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়া গ্রামে। তার বাবা রাশেদুল ইসলাম কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জড়িত না থাকলেও তার দাদা আবুল হোসেন মণ্ডল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি পদে রয়েছেন।

ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকলেও আগে থেকেই সৈকত ধর্মীয় একটি দলের আদর্শ অনুসরণ করতেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। হিন্দুপল্লীতে হামলার ঘটনার পর পরই সৈকত ও রবিউল আত্মগোপনে চলে যান।

রামনাথপুরের মাঝিপাড়ার যুবক পরিতোষ সরকার ধর্ম অবমাননা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগ ১৭ অক্টোবর রাতে বড় করিমপুর, কসবা ও উত্তরপাড়া গ্রামের ২৮টি হিন্দু্ বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযাগের ঘটনা ঘটে। এতে ৬৬টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

জাগরণ/এমএ