• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১২, ২০২২, ১২:৫০ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১১, ২০২২, ০৬:৫০ পিএম

১৫ জানুয়ারি থেকে ট্রেনে অর্ধেক যাত্রী

১৫ জানুয়ারি থেকে ট্রেনে অর্ধেক যাত্রী
ফাইল ফটো

আগামী ১৫ জানুয়ারি (শনিবার) থেকে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ট্রেন চলাচলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বুধবার (১২ জানুয়ারি) থেকে নতুন নিয়মে ট্রেনের টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার ১১ (জানুয়ারি) রেলওয়ের উপপরিচালক নাহিদ হাসান খানের সই করা বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানান হয়।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী, ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে এবং ২৫ শতাংশ কাউন্টারে বিক্রি করা হবে। রেলওয়ের সিদ্ধান্ত ১৫ জানুয়ারি থেকে কার্যকর। ট্রেনের টিকিটের দাম বাড়ানো হচ্ছে না বলে নিশ্চিত করেছে কতৃপক্ষ।

ওমিক্রন সংক্রমণ রোধে ১৩ জানুয়ারি থেকে নতুন বিধিনিষেধ অনুযায়ী অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে গণপরিবহন। সে ক্ষেত্রে আসন সংখ্যার অর্ধেক বা ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চলবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করােনাভাইরাস (কোভিড-১৯) বিস্তাররােধে চলাচলের উপর বিধিনিষেধ আরােপ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। প্রজ্ঞাপনে ট্রেন, বাস ও লঞ্চে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচলের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ অবস্থায় যাত্রীবাহী ট্রেন পরিচালনার ক্ষেত্রে রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও যাত্রীদের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তার স্বার্থে শারীরিক দূরত্ব ও মাস্ক পড়া নিশ্চিতের কথাও বলা হয়েছে।

করোনভাইরাসের সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রোগে নতুন বিধিনিষেধের কারণে এসময় আন্তঃনগর ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকেট ও প্ল্যাটফর্ম টিকেট ইস্যুও বন্ধ থাকবে।

রেল ভবনে রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। ওই বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্তের পর সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শনিবারের যাত্রার জন্য অর্ধেক টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত জানায় রেলওয়ে।

আবারো ভাড়া বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন বাস মালিকরা। না হলে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বাস চালানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে মালিক সমিতি। তবে এই দাবিকে অযৌক্তিক বলছে সাধারণ মানুষ। আরেকবার ভাড়া বাড়লে মানুষের ওপর চাপ তৈরি হবে, বলছে যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

বাসে যাত্রী সংখ্যা না কমিয়ে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে বলছে যাত্রী কল্যাণ সমিতি। ভাড়া না বাড়ানোরও পক্ষে সংগঠনটি। বুধবার (১২ জানুয়ারি) বিআরটিএতে এক বৈঠকে বাসে স্বাস্থ্যবিধি মানা ও ভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

জাগরণ/এসএসকে/এমএ