• ঢাকা
  • শনিবার, ২৮ মে, ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২২, ০২:০৩ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৭, ২০২২, ০৮:০৩ পিএম

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে আ‍‍`লীগের ৪ প্রস্তাব

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে আ‍‍`লীগের ৪ প্রস্তাব
ফাইল ফটো।

নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে চারদফা লিখিত প্রস্তাব তুলে ধরেছে আওয়ামী লীগ। সংবিধানের ১১৮ অনুচ্ছেদের বিধান অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দেবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছে দলটি।

সোমবার বিকেলে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সংলাপে চারদফা লিখিত প্রস্তাবনায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রপতি যেমনটা উপযুক্ত বিবেচনা করবেন, সেই প্রক্রিয়ায় তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ করবেন বলেও মত দিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি।

প্রস্তাবনায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের লক্ষ্যে সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১১৮-এর বিধানসাপেক্ষে একটি উপযুক্ত আইন প্রণয়ন করা যেতে পারে বলেও মত দেয়া হয়। এতে বলা হয়, নির্বাচন কমিশন গঠনে একটি রাজনৈতিক মতৈক্য প্রতিষ্ঠা করতে একমাত্র আওয়ামী লীগ সাংবিধানিক রীতি ও রাজনৈতিক অনুশীলন প্রতিষ্ঠা করেছে। 

এই সাংবিধানিক রীতিটি হচ্ছে সার্চ কমিটি/অনুসন্ধান কমিটি গঠনের মাধ্যমে সকলের মতামত ও অংশগ্রহণের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন গঠন। এই ব্যবস্থাটি এখন পর্যন্ত দু'বার (২০১২ এবং ২০১৭) অনুশীলন করা হয়েছে এবং সে অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। এই রীতিটির আলোকে এবং এই প্রক্রিয়ালব্ধ অভিজ্ঞতা থেকে সংবিধানের ১১৮ অনুচ্ছেরে আলোকে একটি আইন প্রণয়ন করা যেতে পারে।

দলের চতুর্থ প্রস্তাবে সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছ নির্বাচনের স্বার্থে সকল নির্বাচনে অধিকতর তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরা হয়েছে।

কেএম নুরুল হুদার নেত্বাধীন বর্তমান ইসির পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি। এই সময়ের মধ্যে রাষ্ট্রপতি একটি নতুন ইসি গঠন করবেন, যার অধীনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই ইস্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ গত ২০ ডিসেম্বর থেকে বঙ্গভবনে নিবন্ধিত রাজনৈতিক লগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করেন। প্রথমে সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টিকে দিয়ে সংলাপ শুরু হয়। সর্বশেষ সোমবার সংলাপে অংশ নেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতারা।

বর্তমানে দেশে নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধিত রাজনৈতিক লের সংখ্যা ৩৯টি হলেও ৩২টি লকে রাষ্ট্রপতির সংলাপে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। আমন্ত্রিত লগুলোর মধ্যে সাতটি ল সংলাপে অংশগ্রহণ থেকে বিরত ছিল। লগুলো হচ্ছে, বিএনপি, বাস, সিপিবি, জেএসডি, ইসলামী আন্দোলন, এলডিপি এবং বাংলাদেশ মুসলিম লীগ (বিএমএল)।

নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে সোমবার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির মো. আবদুল হামিদের সংলাপে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অংশ নেয় আওয়ামী লীগ। 

 

এসকেএইচ//